তিন বছরে সবচেয়ে বেশি গাড়ি বিক্রি হয়েছে আসিয়ানের ৬ দেশে

8

গত তিন বছরের মধ্যে ২০২১ সালে প্রথমবার সবচেয়ে বেশি নতুন গাড়ি বিক্রি হয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংস্থা আসিয়ানের প্রধান ৬ দেশে। এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে ইন্দোনেশিয়া। দেশটিতে গত বছরের মাঝামাঝি সময় থেকে চলাচলে বিধিনিষেধ শিথিলের কারণে অর্থনীতি আবারও গতিশীল হতে শুরু করে।গত বছর আসিয়ানের ৬ দেশ ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন এবং সিঙ্গাপুরে মোট প্রায় ২৮ লাখ নতুন গাড়ি বিক্রি হয়েছে। ২০২০ সালের তুলনায় এই হার ১৪ শতাংশ বেশি। এর মাঝে ইন্দোনেশিয়ায় এক লাফে গাড়ি বিক্রি বেড়েছে ৬৭ শতাংশ। দেশটি নতুন গাড়ি বিক্রিতে থাইল্যান্ডকে পেছনে ফেলে আসিয়ানের শীর্ষ ছয় দেশের মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছে। মোট গাড়ি বিক্রি হয়েছে ৮ লাখ ৮৭ হাজার ২০২টি। এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে কর ছাড় দেওয়ার নীতি। গত বছরের মার্চে কর ছাড় ঘোষণা করা হয়। এর ফলে ইন্দোনেশিয়ার গাড়ির বাজারে ৩০ শতাংশের বেশি দখল নিয়ে আরও শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করেছে টয়োটা মটরস।

গাড়ির বাজারে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় অবস্থান ধরে রেখেছে দাইহাতসু মটর এবং মিতসুবিসি মটরস। যদিও গত বছরের শেষের দিকেই কর ছাড় সুবিধা শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ইন্দোনেশিয়া সরকার এই সুবিধা আগামী বছরের মার্চ পর্যন্ত বাড়িয়েছে। ওই সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্দোনেশিয়ান অটোমোটিভ ইন্ডাস্ট্রিজের পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০২২ সালে নতুন ৯ লাখ গাড়ি বিক্রি হবে। সরকার যেসব প্রণোদনা দিচ্ছে তার ফলে পরিস্থিতি ২০১৯ সালের অবস্থায় ফিরতে পারবে কি না সেটাই এখন সবার নজরে। ২০১৯ সালে করোনা মহামারির আগে ১০ লাখের বেশি নতুন গাড়ি বিক্রি হয়েছে ইন্দোনেশিয়ায়। এদিকে থাইল্যান্ডে টানা তিন বছরের মতো নতুন গাড়ি বিক্রি কিছুটা কমেছে। গত বছর গাড়ি বিক্রি ৪ শতাংশ কমেছে।

মোট গাড়ি বিক্রি হয়েছে ৭ লাখ ৫৯ হাজার ১১৯। ২০২০ সালের তুলনায় গত বছরের প্রথম ছয় মাসে গাড়ি বিক্রি কিছুটা বেড়েছিল। কিন্তু জুলাইয়ে ব্যাংকক এবং অন্যান্য শহরে লকডাউন জারি করায় এই গতি কমেছে। গাড়ির চিপ এবং অন্যান্য স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রাংশের ঘাটতির কারণেও ধীর গতি দেখা গেছে। ফলে অনেক গাড়ি নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানই উৎপাদন বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছে। ২০২২ সালে ৮ লাখ ৬০ হাজার গাড়ি বিক্রির পূর্বাভাস দিয়েছে থাইল্যান্ডে গাড়ির বাজার দখল করে রাখা প্রতিষ্ঠান টয়োটা। অন্যদিকে দ্বিতীয় বছরের মতো মালয়েশিয়াতেও গাড়ি বিক্রি কমেছে। গত বছর দেশটিতে ৫ লাখ ৮ হাজার ৯১১টি গাড়ি বিক্রি হয়েছে যা আগের বছরের তুলনায় ৪ শতাংশ কম।

গত জুনে সরকার দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণার পর কিছু সময়ের জন্য গাড়ি বিক্রিতে ধীর গতি দেখা দেয়। চলতি বছর দেশটিতে ৬ লাখ গাড়ি বিক্রির পরিকল্পনা রয়েছে। ২০১৯ সালেও সংখ্যাটা প্রায় একই রকম ছিল। দুই বছরের মধ্যে প্রথমবার ভিয়েতনামে গাড়ি বিক্রি ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ফিলিপাইনে ১৬ শতাংশ বেড়েছে। ভিয়েতনামে মোট গাড়ি বিক্রি হয়েছে ৩ লাখ এবং ফিলিপাইনে ২ লাখ ৮০ হাজার। ২০২০ এবং ২০২১ সালে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার গাড়ির বাজারে চতুর্থ বৃহত্তম অবস্থান দখল করে রেখেছে ভিয়েতনাম। দীর্ঘদিন এই অবস্থান ছিল ফিলিপাইনের হাতে। গত ডিসেম্বরে আসিয়ানের ছয় দেশে একত্রে ৩ লাখ ৩০ হাজার গাড়ি বিক্রি হয়েছে অর্থাৎ আগের তুলনায় গাড়ি বিক্রি বেড়েছে ৬ শতাংশ। টানা তৃতীয় বারের মতো এই অবস্থান ধরে রেখেছে তারা।