তাহলে কী কাতার বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়বে ইকুয়েডর?

4

নভেম্বরে কাতারে বসছে বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর। দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্ব শেষ হয়েছে আগেই। এই মহাদেশ থেকে চতুর্থ দল হিসেবে সরাসরি বিশ্বকাপে জায়গা করে নিয়েছে ইকুয়েডর। তবে বিশ্বকাপে ইকুয়েডরের খেলা নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা। ‘অযোগ্য’ খেলোয়াড় মাঠে নামানোর অভিযোগ উঠেছে ইকুয়েডরের বিপক্ষে। গত মাসে ফিফার কাছে এই অভিযোগটি করেছে চিলি ফুটবল ফেডারেশন। বাছাইপর্বে খেলা ইকুয়েডরের রাইটব্যাক বায়রন কাস্তিলোকে নিয়ে এই অভিযোগ। চিলির পক্ষে আইনজীবী হিসেবে কাজ করছেন ব্রাজিলীয় আইনজীবী এদুয়ার্দো কারলেজ্জো। সংবাদ সম্মেলনে কারলেজ্জো জানান, বায়রন কাস্তিলোর জন্মসনদ ভুয়া। ইকুয়েডরের জন্মসনদের নথিপত্রে কারলেজ্জোর আঙুলের ছাপ নেই। ইকুয়েডরের সিভিল রেজিস্ট্রি অফিস এবং ফুটবল ফেডারেশন মিলে এই জালিয়াতি করেছে। কারলেজ্জো দাবি, কাস্তিলোর জন্ম কলম্বিয়ার তুমাকোয়। চিলির এই অভিযোগ প্রমাণিত হলে, ইকুয়েডরের হয়ে কাস্তিলো বাছাইপর্বে যে ৮ ম্যাচ খেলেছেন, তার সবগুলোতেই পয়েন্ট কাটতে পারে ফিফা। কাস্তিলোর খেলা ৮ ম্যাচে ইকুয়েডর পেয়েছে ১৪ পয়েন্ট। এই পয়েন্টগুলো হারালে কাতার বিশ্বকাপে খেলা হবে না দেশটির। ১৯ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে থেকে বিশ্বকাপ বাছাই শেষ করেছিল চিলি। কারলেজ্জোর মতে, একুয়েডরের বিপক্ষে দুই ম্যাচের পয়েন্ট চিলিকে নিয়ে যাবে কাতার বিশ্বকাপে। এদিকে, চিলির অভিযোগের ব্যাপারটি ফিফা বৃহস্পতিবার নিশ্চিত করেছে। তবে এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি সংস্থাটি।