তাহলে কি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ফিরবেন আমির?

13

প্রায় তিন বছর পর প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ফিরেছেন মোহাম্মদ আমির। অবসর ভেঙে তার টেস্ট ক্রিকেটে ফেরার সম্ভাবনা নিয়ে তাই শুরু হয়ে গেছে আলোচনা। পাকিস্তানের এই পেসার নিজে অবশ্য এখনই এমন কিছু ভাবছেন না। এই মুহূর্তে ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলাটা ‘বড্ড তাড়াতাড়ি হয়ে যায়’ বলে মনে করছেন তিনি। এবারের কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে তিনটি ম্যাচ খেলতে গ্লস্টারশায়ারের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন আমির। নাসিম শাহর চোটে কাউন্টিতে খেলার সুযোগ আসে ৩০ বছর বয়সী এই বাঁহাতি পেসারের। সাউথ্যাম্পটনে বৃহস্পতিবার মৌসুমে নিজের প্রথম উইকেট পান তিনি হ্যাম্পশায়ারের বিপক্ষে। সেখানেই তাকে প্রশ্ন করা হয় অবসর ভেঙে ফেরার কথা বিবেচনা করবেন কি-না। আমির জানান তার ভাবনা। “টেস্টে ফেরা নিয়ে এখনই কথা বলাটা বড্ড তাড়াতাড়ি হয়ে যায়। ভবিষ্যতে কী হবে তা কেউ জানে না, সবকিছু পরিবর্তন হতে পারে। তবে এই মুহূর্তে আমি গ্লস্টারশায়ারের হয়ে খেলা উপভোগ করছি।” আমির টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানান ২০১৯ সালের জুলাইয়ে, মাত্র ২৭ বছর বয়সে। টিম ম্যানেজমেন্টকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে ২০২০ সালের ডিসেম্বরে হুট করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকেই বিদায় বলে দেন তিনি। গ্লস্টারশায়ারের হয়ে প্রথম ম্যাচে গত সপ্তাহে সারের বিপক্ষে একমাত্র ইনিংসে ২৮ ওভার বোলিং করে আমির ছিলেন উইকেটশূন্য। বৃহস্পতিবার হ্যাম্পশায়ারের বিপক্ষে ম্যাচের প্রথম দিন ২১ ওভার বোলিং করে উইকেট তিনি পান ৩টি। নতুন বলে বোলিং শুরু করলেও তার সবগুলি উইকেটই পুরনো বলে। সারের বিপক্ষে ম্যাচের আগে তার সবশেষ প্রথম শ্রেণির ম্যাচটিও ছিল কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে, ২০১৯ সালের অগাস্টে এসেক্সের হয়ে কেন্টের বিপক্ষে।

দীর্ঘ দিন পর লাল বলের ক্রিকেটে ফিরলেও ভালো অনুভব করছেন বলে জানালেন তিনি। “আমি তিন বছর পর (প্রথম শ্রেণির ম্যাচ) খেলছি, একজন ফাস্ট বোলার হিসেবে কাজটা সহজ নয়। গত চার বছরে আমি কোনো প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলিনি। তবে প্রথম ম্যাচের পর আমি ভালো অনুভব করছি। ছেলেদের সাহায্য করার এবং তাদের জন্য ভালো করার চেষ্টা করছি। একজন বোলার হিসেবে ভালো বোলিং করা এবং সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া আমার দায়িত্ব। সেটিই করার চেষ্টা করছি।” পাকিস্তানের হয়ে ৩৬ টেস্টে আমিরের উইকেট ১১৯টি, ৬১ ওয়ানডেতে তার উইকেট ৮১টি আর ৫০ টি-টোয়েন্টিতে ৫৯টি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরে গেলেও বিশ্ব জুড়ে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে খেলছেন নিয়মিত। এবার ফিরলেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে।

আপাতত লাল বলের ক্রিকেট উপভোগ করে যেতে চান তিনি। কাউন্টির পর খেলতে চান ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে। “পিএসএলে সাইড স্ট্রেন থেকে সেরে ওঠার পর আমি অনুশীলন করেছিলাম এবং খুব ভালো বোধ করছিলাম, ভাবছিলাম কেন লাল বলের ক্রিকেটে সুযোগ হবে না। আমি মনে করি, এখন ভালো করছি এবং সঠিক পথে আছি। আমি লাল বলের ক্রিকেট উপভোগ করছি। আপাতত এখানে শুধু তিনটি ম্যাচ খেলতে এসেছি। এরপর সিপিএলে যাওয়ার পরিকল্পনা আছে।”