ডেম্বেলের গোলে লা লিগার শীর্ষে বার্সেলোনা

4

উসমানে ডেম্বেলের একমাত্র গোলে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে ১-০ ব্যবধানে হারিয়ে লা লিগার পয়েন্ট টেবিলে তিন পয়েন্টের ব্যবধান বাড়িয়ে তালিকার শীর্ষে থাকা বার্সেলোনা। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ আগের দিন ভিয়ারিয়ালের কাছে পরাজিত হওয়ায় বার্সেলোনার সামনে সুযোগ ছিল এগিয়ে যাওয়ার। ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানোতে সেই সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগিয়েছে কাতালান জায়ান্টরা। এই মৌসুমে দলের সর্বোচ্চ গোলদাতা রবার্ট লেওয়ান্ডোভস্কি নিষেধাজ্ঞার কারণে খেলতে পারেননি। তার পরিবর্তে আনসু ফাতিকে আক্রমণভাগের দায়িত্ব দেন বার্সা কোচ জাভি। কিন্তু গত রোববার ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন ফরাসি উইঙ্গার উসমানে ডেম্বেলে। ২২ মিনিটে দারুন ফিনিশিংয়ে বার্সাকে এগিয়ে দেন তিনি।

এক গোলে পিছিয়ে থেকে নিজেদের মাঠে অ্যাটলেটিকো চাপ সৃষ্টি করেছিলো বার্সার ওপর। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা বার্সা ডিফেন্ডার রোনাল্ড আরাউজো ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে আঁতোয়ান গ্রীজম্যানের একটি শট লাইনের উপর থেকে ক্লিয়ার করেন। ডিয়েগো সিমিওনের দল শেষ পর্যন্ত আর সমতায় ফিরতে পারেনি। দুই দলই ম্যাচ শেষ করেছে ১০ জন নিয়ে। ইনজুরি টাইমে বার্সার ফেরান তোরেস আর অ্যাটলেটিকোর স্টিফান স্যাভিচ একে অপরের সঙ্গে বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে লাল কার্ড দেখেন। ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ জাভি বলেছেন, ‘আমরা জয়ী হলেও এখানে শুধুমাত্র তিন পয়েন্ট মূল ব্যপার নয়। এটা আমাদের জন্য আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর একটি ম্যাচ ছিল। লিগের এই মুহূর্তে এসে এই ধরনের জয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এখানে একটি বিষয় স্পষ্ট, এই মৌসুমে লিগ জয়ে আমরা অন্যতম দাবিদার।’ লা লিগার শেষ ১৬ ম্যাচে বার্সেলোনা মাত্র ৬ গোল হজম করেছে। গত কালকের ম্যাচেও গ্রীজম্যান দুইবার সমতা ফেরানোর সুযোগ হাতছাড়া করেন। কাতালানরা মাত্র দুটি শট টার্গেটে রাখতে পেরেছে। অ্যাটলেটিকো গোলরক্ষক ইয়ান ওবলাক বলেন, ‘এটা একটি ভাল ম্যাচ ছিল, শুধুমাত্র প্রথম ২৫ মিনিট ছাড়া। আমরা ভালই চাপ সৃষ্টি করেছিলাম, সুযোগও এসেছিল। কিন্তু গোল করতে না পারাটা আমাদের ব্যর্থতা। আমাদের শুরুটাও ভাল হয়নি। প্রথম ২৫ মিনিট আত্মবিশ্বাসের অভাব ছিল। এরপর আমরা জেগে উঠি। কিন্তু ততক্ষনে ১-০ গোলে পিছিয়ে পড়েছি।’ এই হারে বার্সেলোনা থেকে ১৪ পয়েন্টের ব্যবধানে পিছিয়ে অ্যাটলেটিকো টেবিলের পঞ্চম স্থানে নেমে গেছে। অ্যাটলেটিকো কোচ সিমিওনে বলেন, ‘পরিস্থিতি খুব একটা চিন্তনীয় নয়, কিন্তু এই ধরনের ম্যাচের সঙ্গে আমাদের মানিয়ে নেওয়া শিখতে হবে। বাস্তবতা হচ্ছে আমরা হেরে গেছি।

এটা সত্যি যে আমাদের দলের ফিরে আসার সক্ষমতা আছে। কিন্তুসেটা হয়নি।’ ম্যাচের শুরুতে ফাতির একটি প্রচেষ্টা দুর্দান্তভাবে রুখে দেন হোসে জিমিনেজ। শুরু থেকে মাঠে বার্সেলোনারই আধিপত্য ছিল। ২২ মিনিটে বার্স মিডফিল্ডার পেদ্রি বল বাড়িয়ে দেন গাভির দিকে। বক্সের ভিতর গাভি প্রথম সুযোগেই তা বাড়িয়ে দেন ডেম্বেলের দিকে। সহজ এই পাসে বার্সাকে এগিয়ে দিতে ভুল করেননি ডেম্বেলে। অ্যাটলেটিকোর প্রথম সুযোগটি হাতছাড়া করেন মার্কোস লোরেন্তে। ৩০ মিনিটে বার্সার রক্ষণভাগের উপর দিয়ে গ্রীজম্যানের বাড়ানো বলটি কাজে লাগাতে পারেননি। আরাউজোর শট ডিফ্লেকটেড হয়ে বাইরে চলে যায়।

স্বাগতিকরা হঠাৎ করেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের করে নেয়। গ্রীজম্যানের একটি শট অসাধারণ দক্ষতায় রুখে দেন বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগান। শেষ পর্যন্ত অ্যাটলেটিকোর মাঠ থেকে ১-০ গোলের জয়ের তৃপ্তির পাশাপাশি এককভাবে লা লিগার শীর্ষে উঠে তৃপ্তি নিয়েই মাঠ ছাড়ে বার্সেলোনা। এই মুহুর্তে ১৬ ম ইয়াচে ৪১ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের সবার উপরে বার্সা। আর সমান ম্যাচে ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বার্সার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ।