জেলা শ্রমিক লীগের আনন্দ র‌্যালি ও বিক্ষোভ সমাবেশ

57

জাতীয় শ্রমিক লীগ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার নতুন কমিটি অনুমোদন দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে এবং জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি নূর কুতুব আলম মান্নান ও সাধারণ সম্পাদক কে.এম. আযম খসরুকে ধন্যবাদ জানিয়ে আনন্দ র‌্যালি করা হয়েছে। একই সঙ্গে “জামায়াত-বিএনপির আগুন সন্ত্রাস, জ্বালাও পোড়াও ও মানুষ হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ” করা হয়।
গতকাল শনিবার জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগ এসব কর্মসূচির আয়োজন করে।
বিকাল ৪টায় শহরের শহীদ মনিমুল হক সড়কে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু চত্বরে সমাবেশ করে।
সমাবেশের আগে নবগঠিত জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম রানার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন- জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ রুহুল আমিন, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য ও পৌর মেয়র মো. মোখলেসুর রহমান।
বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ রুহুল আমিন তার বক্তব্যে বিএনপি-জামায়াতকে হুঁশিয়ার করে বলেন, আন্দোলনের নামে যদি এ জেলায় কোনো ধরনের নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করা হয় তাহলে আওয়ামী লীগ সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে তাদের উচিত শিক্ষা দিবে। তিনি বলেন- দেশের উন্নয়ন সইতে পারে না বলে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি নানান ষড়যন্ত্র করছে। আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের এসব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান জেলা আওয়ামী লীগের প্রবীণ এই নেতা।
সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ডা. গোলাম রাব্বানী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, নবগঠিত জেলা কৃষক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ বকুল ও সাধারণ সম্পাদক আল কামাল ইব্রাহিম রতন, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ডা. সাঈফ জামান আনন্দ ও সাধারণ সম্পাদক আশিকুজ্জামানসহ অন্যরা।
উল্লেখ্য, শহীদুল ইসলাম রানাকে সভাপতি, মো. জুয়েল রানাকে সাধারণ সম্পাদক এবং রুবেল হোসেনকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে জাতীয় শ্রমিক লীগ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।