জেলায় ৪১ জন তৃতীয় লিঙ্গের নাগরিকসহ ১৩০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পেলেন মাথা গোঁজার ঠাঁই

23

সরকারের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ৩য় পর্যায়ের দ্বিতীয় ধাপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় ৪১ জন তৃতীয় লিঙ্গের নাগরিকসহ শিবগঞ্জ ও গোমস্তাপুরে ১৩০ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন পেয়েছেন মাথা গোঁজার ঠাঁই। এরমধ্যে শিবগঞ্জ উপজেলায় ৭৬টি ও গোমস্তাপুর উপজেলায় ১৩টি পরিবার রয়েছে।  বৃহস্পতিবার সারাদেশের সঙ্গে উপকারভোগী এই ১৩০ পরিবারের সদস্যদের হাতে জমির দলিল ও নবনির্মিত ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে তাদের অনুকূলে ০.০২ শতাংশ করে সরকারি খাসজমি বন্দোবস্ত প্রদান করা হয় এবং কবুলিয়ত দলিল ও নামজারি প্রক্রিয়া সম্পাদন করা হয়।
বৃহস্পতিবার সারা দেশের ২ টি জেলা এবং ৫২ টি উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণার অংশ হিসেবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সকালে এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ দুটি জেলা ও ৫২ টি উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণার পাশাপাশি উপকারভোগীদের মাঝে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তরের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।
এ উপলক্ষে শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খাঁন প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর উপকারভোগীদের মাঝে বাড়ির চাবি ও জমির দলিল তুলে দেন। এসময় শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, পৌর মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল হায়াত, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম, থানা ইনচার্জ চৌধুরি জোবায়ের হোসেন উপস্থিত ছিলেন। জলা প্রশাসক জানান, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথম পর্যায়ে এ জেলার পাঁচটি উপজেলায় ১ হাজার ৩১৯টি, ২য় পর্যায়ে এ জেলার পাঁচটি উপজেলায় ২ হাজার ৬১৯টি ও ৩য় পর্যায়ের প্রথম ধাপে এ জেলার পাঁচটি উপজেলায় ৫২১টি পরিবারের অনুকূলে গৃহগুলো হস্তান্তর করা হয়েছে। এ জেলায় ১ম, ২য় ও ৩য় পর্যায়ে মোট ৪ হাজার ৫৮৯টি গৃহ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার অর্থাৎ ‘ক’ শ্রেণির পরিবারের অনুকূলে বরাদ্দ দেয়া হয়।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার বেলা ১০ টায় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের পর দুই শতক জমি সহ বাড়ির দলিল তুলে দেওয়া হয় ৪১ জন তৃতীয় লিঙ্গের এসব ভূমি ও গৃহহীনদের। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের স্লুইসগেট এলাকায় এসব ঘর নির্মাণ করা হয়।
ভাড়া বাড়ি বা অন্যের বাড়িতে থাকা তৃতীয় লিঙ্গের এ সব গৃহহীনরা প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে খুব খুশি। তৃতীয় লিঙ্গের নেত্রী ববিতা খাতুন জমি ও ঘর পাওয়ায় সবার পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।
সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফফাত জাহানের সভাপতিত্বে জমি ও ঘরের দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তসিকুল ইসলাম তসি, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাঈমা খান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তসিকুল বাবলু ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন আখতারসহ অন্যরা। অন্যান্য উপজেলা প্রশাসনও ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিল।