জিয়া, ওদুদ ও শিমুলেই ভরসা রাখল আওয়ামী লীগ

71

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৩০ জনের অধিক নেতা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে দলটির সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডে আবেদন করেছিলেন। তাদের মধ্যে থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের তিনটি আসনে কে কে মনোনয়ন পাবেন তা নিয়ে সেইসব নেতাদের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে আবেগ আর উচ্ছ্বাসের কমতি ছিল না।
অবশেষে রবিবার সব জল্পনা-কল্পনার অবসান হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে তিনটি সংসদীয় আসনে নৌকার মাঝি হয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মু. জিয়াউর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল। অর্থাৎ বর্তমান এমপিদের ওপরেই ভরসা রাখা হয়েছে।
তদের মধ্যে ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল ৪৩, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসন, মু. জিয়াউর রহমান ৪৪, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (নাচোল-গোমস্তাপুর-ভোলাহাট) আসন ও মো. আব্দুল ওদুদকে ৪৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনে নৌকা প্রতীয়ক নিয়ে লড়াইয়ে নামছেন।
রবিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সারাদেশের ২৯৮টি আসনের আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ডে মনোনীত চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেন।
এদিকে দলীয় মনোনয়ন পাওয়া তিন নেতার কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বইছে। অন্যদিকে মনোনয়নবঞ্চিতদের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে হতাশা নেমে এসেছে।
নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল ও গণবিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, সারাদেশের সঙ্গে চাঁপাইনবাবগঞ্জের তিনটি আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ আগামী ৩০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার। ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর মনোনয়ন যাচাই-বাছাই হবে, রিটার্নিং অফিসারের বাছাইয়ে রিটার্নিং অফিসারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের ৫ থেকে ৯ ডিসেম্বর, আপিল নিষ্পত্তি হবে ১০ থেকে ১৫ ডিসেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ ডিসেম্বর রবিবার, প্রতীক বরাদ্দ করা হবে ১৮ ডিসেম্বর সোমবার এবং আগামী ৭ জানুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
গণবিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, ৩০ নভেম্বর অথবা তার পূর্বে কোনো দিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারদের নিকট মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে। এছাড়া অনলাইনেও মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে।
উল্লেখ্য, সহকারী রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বে রয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ।
পাঁচটি উপজেলা নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা গঠিত। এর মধ্যে ১৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে ৪৩, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ); ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভা নিয়ে ৪৪, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (নাচোল-গোমস্তাপুর-ভোলাহাট) এবং ১৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে ৪৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসন।
জেলায় মোট ভোটার রয়েছেন ১৩ লাখ ৫৩ হাজার ৩২১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬ লাখ ৮৩ হাজার ৪৭৮ জন ও মহিলা ভোটার ৬ লাখ ৬৯ হাজার ৮৪৩ জন। ভোট কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে ৫১২টি, নতুন ভোট কেন্দ্র ৪৫টি এবং ভোট কক্ষ ৩ হাজার ৭৮টি ও অস্থায়ী ভোট কক্ষ ১৫১টি। জেলা নির্বাচন অফিস এই তথ্য জানিয়েছে।
জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনে মোট ভোটার রয়েছেন ৪ লাখ ৭২ হাজার ২৮৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৪১ হাজার ৮৫৯ জন ও মহিলা ভোটার ২ লাখ ৩০ হাজার ৪২৩ জন।
অন্যদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে মোট ভোটার রয়েছেন ৪ লাখ ৩১ হাজার ৭১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ১৪ হাজার ৩৫৬ ও মহিলা ভোটার ২ লাখ ১৬ হাজার ৭১৫ জন।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনে মোট ভোটার রয়েছেন ৪ লাখ ৪৯ হাজার ৯৬৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ২৭ হাজার ২৬৩ জন ও মহিলা ভোটার ২ লাখ ২২ হাজার ৭০৫ জন।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনে ভোট কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫৮টি। ভোট কক্ষ ১ হাজার ৪৩টি এবং অস্থায়ী ভোট কক্ষ ৭৮টি। অন্যদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে ভোট কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮২টি, নতুন ভোট কেন্দ্র ২৩টি এবং ভোট কক্ষ ৯৯৩টি ও অস্থায়ী ভোট কক্ষ ৩৩টি।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনে মোট ভোট কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে ১৭২টি, নতুন ভোট কেন্দ্র ২২টি এবং ভোট কক্ষ ১ হাজার ৪২টি ও অস্থায়ী ভোট কক্ষ ৪০টি।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিসার মো. নজরুল ইসলাম ভোট কেন্দ্র ও ভোটারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।