জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে জনসচেতনতা বৃদ্ধির তাগিদ

14

‘আইন মেনে সড়কে চলি, নিরাপদে ঘরে ফিরি’- এই স্লোগানকে সামনে রেখে শনিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বিআরটিএ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সার্কেল শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার আয়োজন করে।
সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খাঁন। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দেবেন্দ্র নাথ উরাঁওয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন- সিভিল সার্জন ডা. এস এম মাহমুদুর রশিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রওশন আলী, কারিগরি প্রশিক্ষক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ মো. মঈন উদ্দিন, ট্রাফিক পরিদর্শক আনিসুজ্জামান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী রেজওয়ানা করিম, জেলা নিরাপদ সড়ক চাই-নিসচা’র সভাপতি সফিকুল আলম ভোতা।
অন্যদের মধ্যে জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সভাপতি আমিনুল ইসলাম সেন্টু, জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ বকুল, জেলা ট্রাক ট্যাংকলরি ও কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আইয়ুব আলীসহ পরিবহন সেক্টরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। স্বাগত বক্তব্য দেনÑ জেলা বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক মো. শাহজামান হক।
এর আগে একটি শোভাযাত্রা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
জনসংখ্যার ঘনত্ব ও যানবহনের তুলনায় রাস্তা না থাকা, রাস্তার পাশে বৈধ অবৈধ স্থাপনা গড়ে ওঠা, ফুটপাত না থাকা, সড়ক মহাসড়কে অবৈধ নসিমন করিমন ভুটভুটিসহ অন্যান্য ছোট ছোট যানবহন চলাচল করা, ওভারটেকিং ও ওভারলোডিং, আইনের প্রতি উদাসীনতা এবং আইন না মানার প্রবণতা, বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো, চালকদের বিশ্রামের ব্যবস্থা না থাকা, দক্ষ চালকের অভাব, দক্ষ চালক তৈরির জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে না থাকা, সর্বোপরি জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতার অভাবের কারণে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে বলে বক্তারা তাদের বক্তব্যে উল্লেখ করেন।
বক্তারা দক্ষ চালক তৈরির জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী চালকদের বিশ্রামের ব্যবস্থা করা, প্রাথমিক পর্যায় থেকে শিশুদের ট্রাফিক আইন ও সাইন সম্পর্কে শিক্ষা দেয়া, যথাযথভাবে আইন প্রয়োগ করা, আইনের বিধিমালা তৈরি করার ওপর পরামর্শ প্রদান করেন।
জেলা প্রশাসক তার বক্তব্যে বলেন- সারাদেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মহাসড়কগুলো ৪ লেন ও ৬ লেন হচ্ছে। আমাদের এ জেলায় যেটুকু মহাসড়ক আছে তা প্রশস্ত হলে সড়ক দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে। তিনি জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধিার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী রেজওয়ানা করিম তার বক্তব্যে জানান, বারঘরিয়া-সোনামসজিদ পর্যন্ত মহাসড়কটি প্রশস্ত করার জন্য একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। অচিরেই একনেকে পাস হওয়ার কথা রয়েছে। প্রকল্পটি পাস হলে বেশ কয়েকটি বাঁক সরলীকরণসহ সড়কটি প্রশস্ত হবে এবং সড়ক দুর্ঘটনা কমে যাবে।
নাচোল প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠত হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পরিষদ চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে পৌর এলাকার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
পরে উপজেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাইমেনা শারমীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন- উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেনÑ নাচোল পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান ঝালু, ভাইস চেয়ারম্যান মশিউর রহমান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জান্নাতুন নাঈম।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, সড়ক দুর্ঘটনার মূল কারণ তিনটি। এগুলো হলো- ওভারস্পিড, ওভারটেকিং ও ওভারলোড। এছাড়া গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোনে কথা বলা ও ট্রাফিক আইন অমান্য করার কারণে দুর্ঘটনা ঘটে। এ পাঁচটি বিষয় রোধ করা গেলে দুর্ঘটনা কমে যাবে। পাশাপাশি দুর্ঘটনা রোধে মানুষের সচেতনতার বিকল্প নেই। মানুষ সচেতন হলে দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে। এ ক্ষেত্রে ট্রাফিক আইন প্রয়োগে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোকেও আরো কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান তারা।
গোমস্তাপুর প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
শনিবার সকালে শোভাযাত্রাটি উপজেলা চত্বর থেকে বের হয়ে রহনপুর পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে উপজেলা সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান হুমায়ুন রেজা। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) সুলতানুল ইমাম, সমবায় কর্মকর্তা নাদিম উদ্দিন, পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা রাইসুল ইসলাম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) হাবিবুর রহমান, সাংবাদিক নুর মোহাম্মদসহ অন্যরা।