জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যেই নিবন্ধন বাধ্যতামূলক

13

‘নির্ভুল জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন করব, শুদ্ধ তথ্যভাণ্ডার গড়ব’- এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জে জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবস পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন- জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খাঁন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেনÑ সিভিল সার্জন ডা. এসএম মাহমুদুর রশিদ, জেলা পরিবার পরিকল্পনা দপ্তরের উপপরিচালক ডা. আব্দুস সালাম, সহকারী পুলিশ সুপার দ্বীন-ই-আলম, ভোলাহাট উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ, শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলাম, দেবীনগর ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাফিজুর রহমানসহ অন্যরা।
সভায় ভিডিও চিত্রের মাধ্যমে জন্ম ও মৃত্যু সম্পর্কিত আইনসহ সার্বিক তথ্য তুলে ধরেন জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার শাখার উপপরিচালক মো. আনিছুর রহমান। এ সময় তিনি বলেন, শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার ৪৫ দিনের মধ্যে জন্মনিবন্ধন করা বাধ্যতামূলক। কাজেই নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যেই শিশুদের জন্মনিবন্ধন সম্পন্ন করতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।
জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে সফলতা অর্জন করায় জেলায় শ্রেষ্ঠ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে ভোলাহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রাব্বুল হোসেন, শ্রেষ্ঠ উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে ভোলাহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে তাবাসসুম, শ্রেষ্ঠ পৌর মেয়র হিসেবে শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলাম, শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মামুন অর রশিদ এবং একই কারণে গোমস্তাপুরের আলিনগর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মিজানুর রহমান, সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের হিসাবরক্ষক কাম কম্পিউটার অপারেটর রাফিজা খাতুন, সদর উপজেলার চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়নের গ্রামপুলিশ বশির উদ্দিন, গোমস্তাপুরের বাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের গ্রামপুলিশ গোলাম মোস্তফাকে সনদসহ সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।