চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ ও ৩ আসনে উপনির্বাচন: মনোনয়নপত্র বাছাই সম্পন্ন, ৩জনের প্রার্থীতা বাতিল

74

জাতীয় সংসদে ৪৪, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (নাচোল-গোমস্তাপুর-ভোলাহাট) ও ৪৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জ আজ-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনের মনোনয়নপত্র বাছাই কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। রবিবার (৮ জানুয়ারি) জেলা নির্বাচন অফিসারের সম্মেলন কক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ ও জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের মনোনয়নপত্র বাছাই করা হয়। এই দুটি আসনে তিন জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে গেছে।
২ আসনের মনোনয়নপত্র বাছাই করেন, রাজশাহীর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন। এসময় সহকারী রিটর্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মোতাওয়াক্কিল রহমানসহ তিন উপজেলার সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থী মু. জিয়াউর রহমান, স্বতন্ত্র প্রার্থী খুরশিদ আলম বাচ্চু, জাপার আব্দুর রাজ্জাক, জাকের পার্টির গোলাম মোস্তফা, বিএনএফের নবীউল ইসলাম ও তাদের প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ আলী সরকারের প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীদের উপস্থিতিতে মনোনয়নপত্র বাছাই করা হয়। বাছাইয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ আলী সরকারের ১ শতাংশ ভোটারের মধ্যে দ্বৈবচনের মাধ্যমে ১০ জনের সাক্ষাৎকারে ১জন স্বাক্ষর না করায় তাঁর মনোনয়নপত্রটি বাতিল করা হয়। তবে তিনি তিনদিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশনে আপিল করতে পারবেন বলে জানানো হয়।
অন্যদিকে সদর আসনে মনোনয়নপত্র বাছাই করেন জেলা প্রশাসক ও এই নির্বাচনে রির্টার্নিং অফিসার এ কে এম গালিভ খাঁন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. আব্দুল ওদুদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী সামিউল হক লিটন ও তাহরিমা, বিএনএফের কামরুজ্জামানের মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়। অপর দিকে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে খেলাপি ঋণের জামিনদার হওয়ায় জাসদের প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনিরের এবং নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামে ঋণ খেলাপি থাকায় জাপা প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান মুকুলের মনোনয়ন বাতিল করা হয়। তাঁরাও তিনদিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশনে আপিল করতে পারবেন।
বাছাইকালে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আহমেদ মাহবুবÑউল-ইসলাম, জেলা নির্বাচন অফিসার মোতাওয়াক্কিল রহমান, সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রওশন আলী, সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাহবুবুল কবির উপস্থিত ছিলেন। প্রার্থীদের মধ্যে তাহরিমা, কামরুজ্জামান, মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল ও তাদের প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীরা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া অন্য প্রার্থীদের প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীরা উপস্থিত ছিলেন।
রিটার্নিং অফিসারদ্বয় জানান, আগামী ১৫ জানুয়ারি বিকেল ৪টার মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় এবং প্রতীক বরাদ্দ ১৬ জানুয়ারি। প্রতীক বরাদ্দের আগে কোনো ধরণের সভা সমাবেশ, পোস্টার ও মিছিল বা লিফলেট বিতরণ করা যাবে না। আগামী এক ফেব্রুয়ারি একটি অবাধ সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচনের প্রত্যাশা ব্যকত্ করা হয়।