চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী মহাসড়ক পূন:নির্মাণের দাবিতে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের মানববন্ধন

118

human-chain-pic-08-11-16চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী মহাসড়ক যানচলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ায় তা নতুন করে নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা। চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রবেশ দ্বার, দ্বায়িরাপুরে মঙ্গলবার সকাল ১০ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি পালিত হয়।
মানববন্ধনে পরিবহন সংশ্লিষ্ট সংগঠন গুলোর পক্ষ থেকে জানানো হয়, দীর্ঘদিন থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী মহাসড়কটি যান চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে থাকলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় নি। বিশেষ করে দ্বারিয়াপুর থেকে রাহশাহীর গোদাগাড়ির মহিশালবাড়ি পর্যন্ত অতিগুরুত্বপূর্ণ সড়কের অংশটি এতটায় খানাখন্দে ভরা যে, যানবহনের যন্ত্রাংশ প্রতিনিয়ত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এমন কী দুর্ঘটনাও ঘটছে। তা ছাড়া ৪০ মিনিটের পথ অতিক্রম করতে দুই ঘন্টারও বেশি সময় লাগছে, এতে প্রতিদিনই ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এ পথে যাতায়াতকারী যাত্রীদের।
জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের সভাপতি আমিনুল ইসলাম সেন্ট বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থল বন্দর থেকে প্রতিদিন পণ্য বোঝাই শত শত ট্রাক চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করে, বর্তমানে রাস্তার যে অবস্থা তাতে আমরা যে কোন দিন পণ্য পরিবহন বন্ধ করে দিতে বাধ্য হব। তিনি বলেন, আমের মৌসুমে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে আম পৌঁছনোর জন্য এ মহাসড়কই ভরসা। এই সব দিক বিবেচনায় নিয়ে মহাসড়কটি চার লেনে নির্মাণের পরিকল্পনার কথা আমরা অনেকদিন থেকেই শুনে আসছি। কিন্তু হবে হবে করে সেটি আজও হয়নি, বর্তমানে রাস্তাটি একেবারেই যানচলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করতে হচ্ছে।
জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সভাপতি এফ কে এম লুৎফর রহমান ফিরোজ বলেন, এর আগেও আমরা প্রশাসনের বিভিন্ন পক্ষকে বলেছি রাস্তা বেহাল অবস্থার বিষয়ে। কিন্তু কোন কাজ হয়নি। আজকে এই মানবন্ধন থেকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী মহাসড়ক পূন:নির্মাণ কাজ শুরু করার দাবি জানাচ্ছি, যদি এ সময়ের মধ্যে দৃশ্যমান কোন অগ্রগতি না হয়, তাহলে যানচলাচল বন্ধ করে দিতে বাধ্য হব।
জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক ইয়াহিয়া বিশ^াস বলেন, আমি চাঁপাইনবাবগঞ্জের সড়ক ও জনপথের প্রকৌশলীকে বলেছি, ‘‘তিনি একডালি খুয়া আর পাথর ফেলে তার উপর একটু পিচ দিয়ে রাস্তা সংস্কার করেন, দুই দিনেই সেটা উঠে গিয়ে আবারো একই অবস্থায় ফিরে আসে, এখন ভাঙ্গা রাস্তার কারণে আমাদের গাড়ী প্রতিদিনই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, তাই আমরা আজ বাধ্য হয়েই মানববন্ধন করছি।”
মানববন্ধন চলাকালে আরো বক্তব্য দেন, ট্রাক মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, জেলা ট্রাক ও মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সাইদুর রহমা, জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের  যুগ্ন সম্পাদক নুরুল ইসলাম প্রমুখ।