চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিষদ, স্থগিত নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা

40

আগামী ১৪ নভেম্বর স্থগিতকৃত চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিষদের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নির্বাচন পরিচালনা-২’র উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত পত্রে এই তথ্য জানা গেছে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা পরিষদ নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার এবং জেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারকে দেয়া ওই পত্রে বলা হয়েছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিষদের নির্বাচন যে পর্যায় থেকে স্থগিত করা হয়েছিল সে পর্যায় থেকে শুরু করে আগামী ১৪ নভেম্বর সকাল ৯টা হতে দুপুর ২টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করে নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছেন।
এদিকে নির্বাচন কমিশনের পত্র পাবার পর বুধবার গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা পরিষদ নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার এ কে এম গালিভ খাঁন। গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত ও সাধারণ আসনের সদস্য পদে আগামী ১৪ নভেম্বর সকাল ৯টা হতে দুপুর ২টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। সকাল সাড়ে ৮টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রতীক বরাদ্দ অনুষ্ঠানে প্রার্থী, প্রার্থীদের প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীদের উপস্থিত থাকার জন্য বলা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ১৭ অক্টোবর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিষদের নির্বাচনের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু সংরক্ষিত আসন-২ এর সীমানা-সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে উচ্চ আদালতে এক প্রার্থীর রিট পিটিশনের কারণে আদালত নির্বাচন স্থগিত রাখার আদেশ দিলে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন স্থগিত করে। পরে রিট খারিজ হয়ে গেলে নির্বাচন কমিশন নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে।
এবারের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার পথে রয়েছেন। এখন শুধু নির্বাচন কমিশন থেকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণার অপেক্ষা।
অন্যদিকে এবার ২টি সংরক্ষিত আসনের মধ্যে ১ নম্বরে ২ জন ও ২ নম্বর আসনে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। অপর দিকে ৫টি সাধারণ আসনে ২০ জন প্রার্থী রয়েছেন। তার মধ্যে ১ নম্বর আসন সদর উপজেলায় ৭ জন, ২ নম্বর আসন নাচোল উপজেলায় ৩ জন, ৩ নম্বর আসন গোমস্তাপুর উপজেলায় ৪ জন, ৪ নম্বর আসন ভোলাহাট উপজেলায় ৪ জন এবং ৫ নম্বর সাধারণ আসন শিবগঞ্জ উপজেলায় মাত্র ২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।
নির্বাচনে ভোটার হচ্ছেন- উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র, পুরুষ ও মহিলা কাউন্সিলর, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, পুরুষ ও মহিলা সদস্যগণ।