চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিলাবৃষ্টিতে ৮১২ হেক্টর ফসলের ক্ষতি

31

চাঁপাইনবাবগঞ্জে অসময়ে হঠাৎ শিলাবৃষ্টি, বজ্রসহ বৃষ্টি ও ঝড়ে ক্ষেতে থাকা রবিশস্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে কৃষি অফিস বলছে, সর্বসাকুল্যে ৮১২ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে। জেলার সব কটি উপজেলায় বজ্রসহ বৃষ্টি হলেও ঝড় ও শিলাবৃষ্টি জেলার ৩-৪টি স্থানে হয়েছে।
গত বুধবার সন্ধ্যা থেকে বজ্রসহ বৃষ্টি শুরু হলেও রাত সাড়ে ৯টার দিকে হঠাৎ ঝড়ো হাওয়াসহ শিলাবৃষ্টি শুরু হয়। চলে প্রায় ১৫ মিনিট ধরে। এতে বিপাকে পড়ে শত শত পথচারী।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম জানান, সরিষা, পেঁয়াজ, বোরো বীজতলা, ডাল-জাতীয় ফসল, ভুট্টা, স্ট্রবেরিসহ ৮১২ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো হচ্ছেÑ সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা, মহারাজপুর ও রানীহাটি এবং শিবগঞ্জ উপজেলার ঘোড়াপাখিয়া, নয়ালাভাঙ্গা, ছত্রাজিতপুর, পাঁকা, উজিরপুর ও শিবগঞ্জ পৌরসভা রয়েছে। জেলায় ১৪ মিলিমিটার গড় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এছাড়া আমের আগাম মুকুল নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
বহালাবাড়ী গ্রামের আবু সায়েম জানান, জেলার রানীহাটি, রামচন্দ্রপুর, ছত্রাজিতপুর, মহারাজপুর ও বারঘরিয়া এলাকায় শিলাবৃষ্টিতে মাটিতে শিলার আস্তরন পড়ে যায়। অনেক বাড়ির দরজা শিলার স্তূপে আটকে যায়। তিনি আরো জানান, এর আগে এ ধরনের অসময়ে শিলাবৃষ্টি কখনো দেখেননি।
চর অঞ্চলের কৃষক ইসমাইল হোসেন জানান, বিকেল থেকেই আকাশে মেঘ ছিল। সন্ধ্যা থেকে হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হয়। কিন্তু রাত সাড়ে ৯টা থেকে শুরু হয় ব্যাপক শিলাবৃষ্টি। ১৫ মিনিটের এ শিলাবৃষ্টিতে আমাদের এলাকার সরিষা, টমেটো ,ফুলকপি ও ভুট্টাসহ বেশকিছু বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম জানান, শিলায় শুধুমাত্র শিবগঞ্জ উপজেলার ৩ ইউনিয়নের কিছু এলাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে। অসময়ের শিলাবৃষ্টিতে সরিষা এবং স্ট্রবেরির ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। সেসাথে কিছু এলাকায় সবজিরও ক্ষতি হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তুষারপাতের মতো পড়েছে শিলা। সঙ্গে ছিল বাতাস ও বৃষ্টি। শীতের রাতে এমন বিরল শিলাবৃষ্টিতে জনসাধারণকে ভাবিয়ে তুলেছে।
এর আগে বুধবার বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়। এর মধ্যে বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৫টা পর্যন্ত গোমস্তাপুর উপজেলায় মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে।
বুধবার চাঁপাইনবাবগঞ্জের আকাশ সকাল থেকেই মেঘাচ্ছন্ন ছিল। দিনব্যাপী সূর্যের দেখা মিলেনি। সদর উপজেলা, শিবগঞ্জ ও নাচোলেও হঠাৎ গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টিতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত বৃষ্টি হয় বলে জানা গেছে।
গোবরাতলা ইউনিয়নের বাসিন্দা জাহাঙ্গীর আলম বলেন- এই শীতকালে এমন শিলাবৃষ্টি বাপের জন্মেও দেখিনি। সন্ধ্যার দিকে প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু রাত সাড়ে ৯টার দিকে ব্যাপকভাবে শিলাবৃষ্টি হয়। দিনব্যাপী মেঘলা আকাশ থাকলেও কেউ বাড়ি থেকে বের হওয়ার সময় বৃষ্টির আশঙ্কা বা পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে বের হয়নি। ফলে ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে।