চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাছ-সয়াবিনের বাজার ঊর্ধ্বমুখী, দাম বেড়েছে দেশী মুরগির

2

চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাজারে দেশী মুরগির দাম কেজিতে বেড়েছে ৩০ টাকা। এছাড়া ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে প্যাকেটজাত গমের আটা, সব ধরনের মাছ ও সয়াবিন তেলের দাম।  শুক্রবার জেলাশহরের নিউ মার্কেট বাজারের মুদিপট্টি, মাছপট্টি, মুরগিপট্টি ঘুরে এমনটাই জানা গেছে।
মুরগি বিক্রেতা আলম ও জহরুল জানান, সরবরাহ কম থাকায় দেশী মুরগির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতি কেজি দেশী মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৪৮০ টাকা। তবে অন্যান্য মুরগির দাম আগের মতোই রয়েছে। অন্য মুরগিগুলোর মধ্যে সোনালি প্রতি কেজি ২৫০-২৬০ টাকা, ব্রয়লার ১৯০-২০০ টাকা, লাল লিয়ার ২৭০-২৮০ টাকা, সাদা লিয়ার ২৫০-২৬০ টাকা, প্যারেন্স ৩৪০-৩৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।
মুদিপট্টির দোকানদার আব্দুর রহমান জানান, তীর, বসুন্ধরা, ফ্রেশসহ প্যাকেটজাত গমের আটার দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৫৬ টাকা থেকে ৫৮ টাকা, প্লাস্টিকের প্যাকটজাত ১ লিটার সয়াবিন বিক্রি হচ্ছে ১৭৩ টাকা। যা কয়েকদিন আগে বিক্রি হচ্ছিল ১৬৫ থেকে ১৭০ টাকা। এছাড়া চালের মধ্যে সাদা স্বর্ণা ৪৫ টাকা, লাল স্বর্ণা ৫০ টাকা, ২৮ চাল ৫৮-৬২ টাকা, জিরাসাইল ৬৫-৭০ টাকা, আলু ৩০-৩৫ টাকা, পেঁয়াজ ৮০-৮৫ টাকা, চিনি ১৪০ টাকা, খোলা গমের আটা ৪৩ টাকা প্রতি কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
এদিকে পাইকারি মাছ ব্যবসায়ী গোলাপ হোসেন বলেন, পানির অভাবে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ দেরি হয়। যখন সেচ দিয়ে পোনা অবমুক্ত করা হয়, তার কিছুদিনের মধ্যেই অতিবৃষ্টিতে অনেকের পুকুরের মাছ ভেসে যায়। ফলে মাছের উৎপাদন কমে যাওয়ায় বাজারে মাছ কম আসছে। একারণেই সব ধরনের মাছের দাম ঊর্ধ্বমুখী।
অন্যদিকে নিউ মার্কেট কাঁচাবাজারে দেখা যায়, সবজির দাম আগের মতোই রয়েছে। প্রতি কেজি ঘিওন বেগুন ৮০ টাকা, ইরি বেগুন ৬০ টাকা, সিম ৮০ টাকা, ফুলকপি ৩০ টাকা, মিষ্ট কুমড়া ৫৫-৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি পিস পাতাকপি বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা দামে। ডিমের দামও বেড়েছে। বর্তমানে প্রতি হালি ডিম বিক্রি হচ্ছে ৪৪-৪৮ টাকা।