চাঁপাইনবাবগঞ্জে বৃত্তি পেয়েছে ৯০১ শিক্ষার্থী

115

Nawabganj

পঞ্চম শ্রেণির ২০১৫ সালের প্রাথমিক বৃত্তির ফল প্রকাশ করা হয়েছে। প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে এবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে বৃত্তি পেয়েছে ৯০১ শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে ৩৫৯ জন, সাধারনে ৫২৪ জন এবং সম্পূরকে ১৮ জন শিক্ষার্থী। উপজেলা ভিত্তিক এ সংখ্যা দাঁড়াবে, সদর উপজেলায় ট্যালেন্টপুলে ১২০ জন ও সাধারনে ১৭৮, শিবগঞ্জ উপজেলায় ট্যালেন্টপুলে ১৩০ জন ও সাধারনে ১৪৮ জন, ভোলাহাট উপজেলায় ট্যালেন্টপুলে ২১ ও সাধারনে ২৮ জন, গোমস্তাপুরে ট্যালেন্টপুলে ৫৬ ও সাধারণে ১০৬ জন, নাচোলে ট্যালেন্টপুলে ৩২, সাধারণে ৬৪। এছাড়াও জেলায় সম্পূরক বৃত্তি পেয়েছে ১৮ জন শিক্ষার্থী। এদিকে ওয়ার্ড ভিত্তিক ধারাবাহিক সাফল্য ধরে রেখেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার পোল্লাডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৪ নং ওয়ার্ড থেকে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৬ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৩জনই এই বিদ্যালয়ের। বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি শহীদুল হুদা অলক ও প্রধান শিক্ষক মোনোয়ারা খাতুন শিক্ষার্থীদের এই সাফল্যে তাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন।
এদিকে সারা দেশে বৃত্তি পেয়েছে ৮২ হাজার ৪৯৬ শিক্ষার্থী। সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মঙ্গলবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান এ ফল ঘোষণা করেন। এবার বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যার পাশাপাশি বৃত্তির অর্থের পরিমাণও বেড়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। প্রাথমিকে এবার বৃত্তির সংখ্যা ২৭ হাজার ৫০০ বেড়েছে জানিয়ে গণশিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘প্রাথমিকে এবার ৮২ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থী বৃত্তি পেয়েছে। আগে ৫৫ হাজার শিক্ষার্থী বৃত্তি পেত।’মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এবার ট্যালেন্টপুলে (মেধাবৃত্তি) ৩৩ হাজার ও ৪৯ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থী সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে। আগে প্রাথমিকে ট্যালেন্টপুলে ২২ হাজার ও ৩৩ হাজার শিক্ষার্থীকে সাধারণ বৃত্তি দেওয়া হতো। সাধারণ কোটায় ইউনিয়ন বা পৌরসভার ওয়ার্ড, উপজেলা বা থানা ও বিভাগ পর্যায়ে বৃত্তি বণ্টনের পর এবার চারটি বৃত্তি অবশিষ্ট রয়ে গেছে বলেও জানান তিনি।‘আগে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তিপ্রাপ্তদের মাসে ২০০ টাকা করে দেওয়া হলেও এবার থেকে ৩০০ টাকা, সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্তদের মাসে ১৫০ টাকার পরিবর্তে ২২৫ টাকা করে দেওয়া হবে’ বলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা তিন বছর ধরে এ হারে অর্থ পাবেন বলে জানা গেছে।
গত ৩১ ডিসেম্বর প্রাথমিক সমাপনীর ফল প্রকাশিত হয়। এতে পাসের হার ছিল ৯৮ দশমিক ৫২ শতাংশ। প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে দুই লাখ ৭৫ হাজার ৯৮০ জন। সংবাদ সম্মেলনের পর থেকে প্রাথমিক বৃত্তির ফলাফল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরেরওয়েবসাইট(িি.িফঢ়ব.মড়া.নফ) থেকে সংগ্রহ করা যাচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘ঝরে পড়া রোধ, শ্রেণি কক্ষে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি বৃদ্ধি, শিক্ষার্থীদের মেধার স্বীকৃতি ও সুষম মেধা বিকাশের জন্য প্রাথমিক ফলাফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে এ বৃত্তি প্রদান করা হয়। ’সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব হুমায়ুন খালিদ, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক মো আলমগীরসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন