চাঁপাইনবাবগঞ্জে উগ্রবাদ প্রতিরোধে দিনব্যাপী সেমিনার

16

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশের উদ্যোগে উগ্রবাদ প্রতিরোধে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা মসজিদগুলোর ইমাম, খতিব, মুয়াজ্জিন ও মাদরাসা শিক্ষকদেরকে সম্পৃক্ত করে উগ্রবাদ প্রতিরোধে “আলেম সমাজের ভূমিকা” শীর্ষক দিনব্যাপী এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।
রবিবার সকালে শহরের নবাবগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনে সেমিনারের উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব।
বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় আয়োজিত সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে আলোচনায় অংশ নেনÑ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবাবগঞ্জ সার্কেল) এসএএম ফজল-ই- খুদা পলাশ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আতোয়ার রহমান।
উদ্বোধনী দিনে উগ্রোবাদ প্রতিরোধে আলেম সমাজের ভূমিকা শীর্ষক সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ডিভিশনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার তৌহিদুল ইসলাম বিপিএম (বার)।
সেমিনারে পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব ইসলামকে শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম উল্লেখ করে বলেন, ‘একটি চক্র নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য পবিত্র ধর্ম ইসলামকে ভুল ব্যাখ্যা করে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। বিপদগ্রস্ত করে। যারা ইসলামের নাম ভাঙিয়ে সন্ত্রাসী কর্মকা- করেছে তারা কখনোই প্রকৃত ইসলামের অনুসারী হতে পারে না।’ তিনি বলেন- তারা পবিত্রগ্রন্থ কোরআনের সম্পূর্ণটা না পড়ে কিছু অংশ পড়ে যাদের কোরআন সম্পর্কে জ্ঞান নেই তাদেরকে ভুল বুঝিয়ে তরুণ সমাজকে ভুল পথে নিয়ে যায়। আপনারা জানেন পবিত্র কোরআন হচ্ছে একটি পূর্ণাঙ্গ জীবন ব্যবস্থা। হযরত মোহাম্মদ (স.) হচ্ছেন আমাদের আদর্শ। তাঁকে অনুসরণ করলে, তাঁর জীবনী ঠিকমতো পড়লে কেউ উগ্রবাদে জড়াবে না। কেননা তিনি কখনই সহিংসতা পছন্দ করতেন না।
পবিত্র ধর্ম ইসলামের সুনাম রক্ষায় অন্ধকারের এই অপশক্তি প্রতিরোধে দেশের ধর্মপ্রাণ আলেম-ওলামাদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে পুলিশ সুপার বলেন- আপনারা হচ্ছেন সমাজের সবচেয়ে সম্মানিত ব্যক্তি। তাই আপনারা সাধারণ মানুষকে বোঝাবেন। আপনাদের সন্তানরা কখন কী করছে তা নজরে রাখবেন।
উদ্বোধনী সেমিনারে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন এলাকার আড়াইশ’ ইমাম অংশগ্রহণ করেন।
আগামী চার দিন উগ্রবাদ প্রতিরোধে শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সমন্বয়ে একই স্থানে সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে আগামী ৮ মার্চ সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় কর্মরত দফাদার ও চৌকিদারদেরকে সম্পৃক্ত করে উগ্রবাদ প্রতিরোধে “আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর করণীয়” শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে।
একই দিন বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তা, পুলিশ সদস্য, জেলা কারাগারের কর্মকর্তা ও কারা রক্ষীগণ এবং আনসার কর্মকর্তা অথবা সদস্যগণকে সেমিনারে সম্পৃক্ত করা হবে।
আগামী ৯ মার্চ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেম্বারগণকে সম্পৃক্ত করে উগ্রবাদ প্রতিরোধে “জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা” শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া জেলা কলেজগুলোর ছাত্র, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের নাগরিকদেরকে সম্পৃক্ত করে “উগ্রবাদ প্রতিরোধে ছাত্র, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ভূমিকা” শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ডিভিশনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার তৌহিদুল ইসলাম।