চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঈদ উপলক্ষে মার্কেটগুলো খুলছে না

592

নিজস্ব প্রতিবেদক : চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় আসন্ন ঈদ উপলক্ষে কোনো মার্কেট খোলা হবে না। শুক্রবার (০৮ মে) বিকেলে বিভিন্ন মার্কেটের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সঙ্গে চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। চেম্বার ভবনে সংগঠনটির সভাপতি মো. এরফান আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় জেলা শহরের নিউ মার্কেট, ক্লাব সুপার মার্কেট, শহীদ সাটু হল মার্কেট, ডিসি মার্কেটের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ স্বর্ণকার সমিতির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
যোগাযোগ করা হলে চেম্বার সভাপতি মো. এরফান আলী ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের উদ্ধৃতি দিয়ে গৌড় বাংলাকে বলেন-এই ৬টি মার্কেটের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকগণকে নিয়ে আয়োজিত জরুরি সভায় সবাই এক মত হয়েছেন যে ‘জীবন থাকলে ব্যবসা পাওয়া যাবে, কিন্তু করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে তো জীবন আর ফিরে পাওয়া যাবে না। তাই করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত ঈদ উপলক্ষে যেসব মার্কেট খোলার কথা হচ্ছিল তা খোলা হবে না মর্মে সিদ্ধান্ত হয়েছে।’ তিনি বলেন-“তবে সরকারি নির্দেশনা মেনে নিত্য প্রয়োজনীয় যেসব দোকান খোলা হচ্ছে সেসব দোকান যথারীতি খুলবে।
উল্লেখ্য, গত ৬ মে এইসব ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় পবিত্র রমজান মাস ও ঈদ উপলক্ষে দোকান পাট খোলা রাখার বিষয়ে আলোচনা হয়। ওই সভায় ক্রয়-বিক্রয়কালে পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন, নিজ উদ্যোগে সকল মার্কেটের প্রবেশমুখে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখা, শপিংমলে বা দোকানে আগত ক্রেতাদেরকে হাত ধুয়ে প্রবেশ করানো, দোকান মালিক ও সেলস ম্যানদের স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা, পণ্যসামগ্রী ঢাকা বা অন্য কোনো স্থান থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে আসার সময় প্রবেশ মুখে জীবাণূ মুক্ত করাসহ বিভিন্ন শর্ত দেয়া হয়। বলায় মার্কেটগুলোর সাধারণ ব্যসায়ীদের সঙ্গে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিকে জানাবে এবং চম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি জেলা প্রশাসনকে জানাবে। এইসব শর্ত মানা হলেই কেবল দোকানপাট খোলার অনুমোতি দেয়া হবে।
যোগাযোগ করা হলে নিউমার্টেক ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোখলেসুর রহমান গৌড় বাংলাকে বলেন-ঈদের কেনাকাটা করতে লোকজন আসবে এবং কোনোভাবেই ভিড় সামলানো যাবে না। কাজেই মার্কেটগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।