চাঁপাইনবাবগঞ্জের পাঁকা-নারায়ণপুর ধুলাউড়ি ঘাটে বজ্রপাত, বাবা নিহত, ছেলে নিখোঁজ

12

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে পদ্মায় মাছ ধরার সময় ঝড় ও বৃষ্টির মধ্যে বজ্রপাতে বদিউর (৪২) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। ডুবে যাওয়া অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে নৌকায় থাকা বদিউরের ছেলে আওয়াল (২২) নিখোঁজ রয়েছেন।  শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ডুবুরিদলের উদ্ধার কাজ অব্যাহত ছিল।
গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে পাঁকা-নারায়ণপুর ধুলাউড়ি ঘাটে বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটে। নিহতের পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৪০ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। নিহত বদিউর শিবগঞ্জ উপজেলার দুর্লভপুর ইউনিয়নের মনোহরপুর গ্রামের মিন্টুর ছেলে।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল হায়াত, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, দুর্লভপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজিব।
নিহত বদিউরের প্রতিবেশীর বরাত দিয়ে শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল হায়াত ও স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার পদ্মা নদীতে মাছ ধরা অবস্থায় বজ্রপাত হলে নৌকার ওপর থেকে নদীতে পড়ে যান বাবা বদিউর ও তার ছেলে আওয়াল। স্থানীয়দের সহযোগিতায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরি দল বহু চেষ্টা চালিয়ে আজ (গতকাল শুক্রবার) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বদিউরের মরদেহ উদ্ধার করেছেন। ছেলেকে উদ্ধারে ডুবুরি দলের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৪০ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা হিসেবে প্রদান করা হয়েছে।
এদিকে দুর্লভপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজিব জানান, ধারণা করা হচ্ছে আওয়ালও মারা গিয়েছেন এবং তার মরদেহ ভেসে যেতে পারে।
উল্লেখ্য, গতবছর শিবগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ চরপাঁকা এলাকায় তেলিখাড়ি ঘাটে বজ্রপাতে ১৬ জন নিহত হয়েছিলেন।