গোমস্তাপুরে বাড়িতে নিরাপদ সবজি উৎপাদন বিষয়ে উঠান বৈঠক

6

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে বাড়িতে নিরাপদ সবজি উৎপাদন বিষয়ে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০২৩-২৪ অর্থবছরে অনাবাদি পতিত জমি ও বসতবাড়ির আঙ্গিনায় পারিবারিক পুষ্টিবাগান স্থাপন প্রকল্পের আওতায় সোমবার গোমস্তাপুর উপজেলা কৃষি অফিস রহনপুর পৌর এলাকার বহিপাড়ায় এই উঠান বৈঠকের আয়োজন করে।
গোমস্তাপুর উপজেলা কৃষি অফিসার তানভির আহমেদ সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, চাঁপাইনবাবগঞ্জের উপপরিচালক ড. পলাশ সরকার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, তেল-জাতীয় ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প রাজশাহীর মনিটরিং অফিসার মো. সাজ্জাদ হোসেন, জেলা বীজ প্রত্যয়ন অফিসার শামীম আহমেদ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত উপপরিচালক (উদ্যান) বুলবুল আহম্মেদ।
উঠান বৈঠকে বক্তারা বলেনÑ সবজি আমাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য পুষ্টিসমৃদ্ধ সুষম খাদ্য তালিকায় অপরিহার্য অংশ। বিভিন্ন প্রকার সবজি খেলে শরীরের প্রতিদিনের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টির চাহিদা পূরণ হয় যা শরীরকে সুস্থ সবল ও কার্যক্ষম রাখতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। সবজিতে চর্বি ও শর্করার হার অত্যন্ত কম থাকায় শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে এটাকে ভালো খাদ্য হিসেবে বলা হয়ে থাকে। উপরন্তু সবজিজাত খাবারে কোলেস্টরেল না থাকায় হৃদরোগ বা উচ্চ রক্তচাপজনিত শারীরিক সমস্যার ঝুঁকি অনেকাংশে কম থাকে। তাই বিশ্বব্যাপী মানুষের মাঝে স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধির সাথে সাথে খাদ্য তালিকায় সবজির গুরুত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।
বক্তারা আরো বলেন, জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা মহামারিকালীন দেশের মানুষের খাদ্য ও পুষ্টি চাহিদা পূরণের লক্ষে বলেছিলেন, ‘এক ইঞ্চি জমিও অনাবাদি থাকবে না’। কৃষিবান্ধব সরকার দেশের প্রতিটি বসতবাড়ি আবাদের আওতায় আনার লক্ষে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, যা বাস্তবায়নের ফলে দেশের সবজি পুষ্টি চাহিদা পূরণে সক্ষম হচ্ছে। কৃষি অফিসারদের সঠিক পরামর্শে যার যার বাড়িতে আঙ্গিনায় সবজি চাষ করলে একদিকে পারিবারিক সবজি চাহিদা পূরণ হবে, অন্যদিকে পুষ্টি চাহিদাও পূরণ হবে।
পরে বীজ ও চারা বিতরণ করা হয়।