গভীর শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদ ও সৈনিকদের স্মরণ জেলাবাসীর

11

গভীর শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদ ও ভাষা সৈনিকদের স্মরণ করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাবাসী। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ শহীদ মিনারসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে শহীদ মিনারে একুশের প্রথম প্রহরে এবং ২১ ফেব্রুয়ারি প্রত্যুষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে বীর শহীদানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলাবাসী।
‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’… একুশের এ অমর সংগীতের সঙ্গে শিশু, কিশোর, তরুণ, বৃদ্ধÑ সব বয়সের মানুষ এসেছিলেন মায়ের ভাষার জন্য যাঁরা অকাতরে দিয়ে গেছেন প্রাণ তাঁদের শ্রদ্ধা জানাতে। একুশ ফেব্রুয়ারি জেলার শহীদ মিনারগুলো ফুলে ফুলে ছেয়ে যায়।
দিবসটি উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ, প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করে।
জেলা প্রশাসন : একুশের প্রথম প্রহরে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে জেলা প্রশাসন। শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এ কে এম গালিভ খান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. জাকিউল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. মহসীন মৃধা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফফাত জাহানসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ।
পরে গত সোমবার বিকেলে দিবসটি উপলক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে বঙ্গবন্ধু মঞ্চে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খান। এ সময় জেলা প্রশাসক বলেন- যাঁরা ভাষার জন্য, দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন তাঁদের রক্তের ঋণ শোধ করবার সময় এসেছে। তিনি আরো বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে। দুজন ব্যক্তি একুশে পদকপ্রাপ্ত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে একজন জীবিত, একজন প্রয়াত। আমাদের এ অঞ্চল ছোট হলেও প্রায় ৫ হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন। তাই চেতনার জায়গাটি আরো বড় হতে হবে। মুক্তিযুদ্ধে বরেন্দ্র অঞ্চলের মানুষের যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে।
আলোচনায় বিশিষ্টজনরা অংশগ্রহণ করেন। স্বাগত বক্তব্য দেনÑ দিবসটি উদ্্যাপন কমিটির আহ্বায়ক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জাকিউল ইসলাম।
আলোচনা সভা শেষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমির বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এছাড়াও জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মসূচি পালন করা হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা : দিবসটি উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও পৌর চত্বরে অবস্থিত শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন মেয়র মো. মোখলেসুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেনÑ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আনিসুর রহমানসহ কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।
বালুগ্রাম আদর্শ কলেজ : যথাযোগ্য মর্যাদায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বালুগ্রাম আদর্শ কলেজে নবনির্মিত শহীদ মিনার উদ্বোধন এবং মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্্যাপিত হয়েছে।
প্রধান অতিথি হিসেবে শহীদ মিনার উদ্বোধন করেন কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি ও রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. তানবিরুল আলম।
শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে কলেজ অধ্যক্ষ মোহা. মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন প্রফেসর তানবিরুল আলম। স্বাগত বক্তব্য দেন ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক রোকেয়া খাতুন।
আদিবাসী আলোর পাঠশালা : রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার বাবুডাইং আদিবাসী আলোর পাঠশালার শিক্ষার্থীরা গ্রামবাসীদের সঙ্গে নিয়ে সোমবার নিজেদেও ভাষায় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি-আমি কি ভুলিতে পারি…’ গান গেয়ে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্্যাপন করেছে। প্রভাতফেরিতে একুশের গানও গাওয়া হয়। প্রভাতফেরির পর নিজেদের বানানো শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, ছড়া-কবিতা আবৃত্তি, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এতে সকল শিক্ষার্থী, গ্রামবাসী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ বন্ধুসভার বন্ধুরাও অংশ নেয়। পরে আলোচনা সভা অুনষ্ঠিত হয়।
গোমস্তাপুর প্রতিনিধি : নানা আয়োজনে মধ্য দিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে মহান একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচি পালন করে।
উপজেলা প্রশাসন গৃহিত কর্মসূচির মধ্যে ছিল একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, ভাষা শহীদদের স্মরণে বিশেষ মোনাজাত ও প্রার্থনা, আলোচনা সভা।
একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিজানুর রহমান, সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিয়াউর রহমান, অপর সাবেক সংসদ সদস্য ও গোমস্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, রহনপুর পৌর মেয়র মতিউর রহমান খান, গোমস্তাপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামছুল আজম, গোমস্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাসসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও জনসাধারণ।
এদিকে সোমবার সকালে উপজেলা সভাকক্ষে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
শিবগঞ্জ : জেলার শিবগঞ্জেও ভাষা শহীদদের স্মরণের মাধ্যমে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে। একুশের প্রথম প্রহরে শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বরে অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল। এরপর উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড, পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, শিবগঞ্জ পৌরসভা, শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শহীদ বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেনÑ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাকিব-আল-রাব্বি, শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার দাস, শিবগঞ্জ থানার ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহম্মেদ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলামসহ সরকারি কর্মকর্তা এবং স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
বেলা ১১টায় উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শহীদ দিবসের তাৎপর্য, অমর ভাষা শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।
নাচোল : চাঁপাইনবাবগঞ্জের মহান শহীদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন একদিনের বইমেলাসহ গুণীজন সম্মাননা ও লেখকদের সংবর্ধনার আয়োজন করে। এছাড়া আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণেরও আয়োজন করা হয়।
উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন চত্বরে সোমবার বেলা ১১টায় বইমেলার উদ্বোধন শেষে নাচোল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক মন্টুকে গুণীজন সম্মাননা দেয়া হয়। এরপর স্থানীয় লেখকদের সংবর্ধনা দেয়া হয়।
এরপর অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদ। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের। বিশেষ অতিথি ছিলেনÑ নাচোল মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ওবাইদুর রহমান, নাচোল উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মশিউর রহমান বাবু, নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ মিন্টু রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আ.ফ.ম হাসান।
আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
এর আগে একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ বেদীতে ফুলের তোড়া দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, নাচোল থানা, হাসপাতাল প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।