খালেদার কাছে নারায়ণগঞ্জ সিটি ভোটে ষড়যন্ত্রের প্রমাণ চান কাদের

66

2015-05-23_bss-50_209928নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন বাইরে থেকে সুষ্ঠু দেখালেও ভেতরে ষড়যন্ত্র ছিল বলে খালেদা জিয়া যে অভিযোগ করেছেন তার প্রমাণ চেয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। রাজধানীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে  বৃহস্পতিবার এক সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রতি এই অনুরোধ জানান সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। কাদের বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন নিয়ে ফখরুল, রিজভী সাহেবরা মনগড়া অনেক কথা বলেছেন। শেষ পর্যন্ত খালেদা জিয়াও বক্তব্য দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে নাকি ষড়যন্ত্র হয়েছে। আমি বেগম জিয়াকে অনুরুধ করব, ষড়যন্ত্র জাতির সামনে প্রমাণ করুন। ওই নির্বাচনে ‘সরকারি দলের ষড়যন্ত্র’ প্রমাণ না করতে পারলে বিএনপি নেত্রীকে অভিযোগ তুলে নিতে বলেছেন তিনি। প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটির নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানকে পৌনে এক লাখ ভোটে হারিয়ে মেয়র পদে পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন নৌকার প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত ওই ভোটকে বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচনের দৃষ্টান্ত বলে দাবি করছেন আওয়ামী লীগ নেতারা; নির্বাচন পর্যবেক্ষকরাও একে অনুসরণীয় বলছেন। তবে ওই নির্বাচন ‘ফেয়ার’ হয়নি অভিযোগ করে ভোটের পাঁচ দিন পর মঙ্গলবার রাতে এক অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়া বলেন, বাইরে হলো সব ফিটফাট, ভেতরে হলো কী? বুঝতে পারছেন যে, ভেতরে যত রকমের দুনিয়ার ষড়যন্ত্র আর বাইরে থেকে সব ফিটফাট দেখায়। দুপুরে ধানম-ির প্রিয়াংকা কমিউনিটি সেন্টারে দলের যৌথ সভায় জেলা পরিষদ নির্বাচনকে ‘সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক’ বলায় বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদেরও সমালোচনা করেন আওয়ামী লীগ সম্পাদক বলেন, সংবিধানের কথা বলবেন না, আপনারাই সংবিধান রক্তাক্ত ও পদদলিত করেছেন। আপনাদের মুখে সংবিধানের কথা শোনা ভুতের মুখে রাম নাম। ২০০০ সালে আমরা সরকারে থাকার সময় জেলা পরিষদের আইন হয়েছে। এটা সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক থাকলে, আপনারা সংশোধন করেননি কেন, বাতিল করেননি কেন? এখানে সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কিছু নেই। ১০ জানুয়ারী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের সমাবেশ সফল করতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে দলের ঢাকা ও ঢাকার আশপাশের জেলার সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক, দলীয় মেয়র, উপজেলা চেয়ারম্যানদের নিয়ে এই মতবিনিময় সভা হয়। সভায় সমাবেশ সফল করার আহ্বান জানিয়ে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে কাদের বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের সমাবেশ করব আমরা। এই সমাবেশকে সফল করতে হবে। তাছাড়া ৫ জানুয়ারিতে গণতন্ত্রেরর বিজয় দিবস উপলক্ষে সারা দেশে সকল জেলা-উপজেলা পর্যায়ে সমাবেশ করবেন। ওই দিন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর ‘রাসেল স্কয়ারে’ এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে সমাবেশ করবে বলে জানান আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, দীপু মনি ও জাহাঙ্গীর কবির নানক এবং সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, বিএম মোজাম্মেল হক ও মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এ সময় উপস্থিত ছিলেন।