দৈনিক গৌড় বাংলা

শনিবার, ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

খরা ঘুচিয়ে গর্বিত আলোনসো

নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে মাত্র দুটি মেজর শিরোপা! তাও আবার ১৯৯৩ সালের পর যা হয়ে ওঠে সোনার হরিণ! কিন্তু ঘরোয়া ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্ব বলতে যা বোঝায় সেই বুন্দেসলিগাই যে কখনও জেতা হয়নি তাদের। বলা হচ্ছে জার্মান ফুটবলের নতুন ইতিহাস গড়া লেভারকুসেনের কথা! তাদের হাত ধরেই যে জার্মান ফুটবলে হয়েছে নতুন সূর্যোদয়। অথচ একটা সময় তাদের নাম হয়ে গিয়েছিল ‘দ্বিতীয় স্থানের রাজা’! পাঁচবার দ্বিতীয়স্থান নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। জার্মান কাপ ফাইনালে হেরেছে তিনবার! অনেকের মুখে তো এটাও বলতে শোনা গেছে- ‘ক্লাবটা বোধহয় অভিশপ্ত’। ১২০ বছরের খরা কাটানোর পর তাই তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলেছেন কোচ জাবি আলোনসো, ‘মুহূর্তটা ক্লাবটির জন্য বিশেষ কিছু। ক্লাবটির ১২০ বছরের ইতিহাসে প্রথমবার বুন্দেসলিগা জয় মানে আসলেই অসাধারণ কিছু। ছেলেরা নৈপুণ্য দেখিয়েছে বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। আমি তাদের জন্য গর্ববোধ করি। পাশাপাশি এখানে কাজ করেও নিজেকে সম্মানিত মনে করছি।’ বার বার হোঁচট খাওয়ায় হতাশা নিয়েই মাঠে ছেড়েছে লেভারকুসেন। অবশেষে আলোনসোর হাত ধরে এসেছে কাক্সিক্ষত সাফল্য। বায়ার্ন মিউনিখের আধিপত্য ভেঙে অবিশ্বাস্য কাজটি করতে পেরে এই কোচ সম্মানিতবোধ করছেন, ‘শেষ পর্যন্ত আমরা বলতে পারছি লেভারকুসেন এখন জার্মান চ্যাম্পিয়ন। সবার জন্যই বিষয়টা সম্মানের। তবে পুরো বিষয়টা অর্জিত হয়েছে এই দল, ক্লাব ও ভক্তদের মাধ্যমে। এখানকার প্রতিটি বিভাগ এই শিরোপা জয়ের জন্য লড়াই করেছে। বিগত কয়েক বছরের পরিশ্রমের ফসল এখন হাতের মুঠোয়। প্রথম শিরোপা সবার জন্যই বিশেষ কিছু। তাই এমন ইতিহাসের অংশ হতে পারা অবিশ্বাস্য ব্যাপার।’

About The Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *