কেইনকে নিয়ে চিন্তিত নন কন্তে

2

ফ্রান্সের বিপক্ষে কোয়ার্টার-ফাইনালে পেনাল্টি মিস করে ভেঙে পড়েন হ্যারি কেইন। পরে ম্যাচও হেরে যাওয়ায় পেয়ে বসে হতাশা। তবে ইংলিশ অধিনায়ককে নিয়ে একদমই চিন্তিত নন তার ক্লাব টটেনহ্যাম হটস্পারের কোচ আন্তোনিও কন্তে। কেইন ওই ধাক্কা কাটিয়ে উঠেছেন বলে বিশ্বাস কন্তের। কাতার বিশ্বকাপে ফরাসিদের বিপক্ষে শেষ আটের লড়াইয়ে শুরুতে পিছিয়ে পড়ার পর পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান কেইন।

সেই সঙ্গে তিনি স্পর্শ করেন ইংল্যান্ডের জার্সিতে ওয়েইন রুনির সবচেয়ে বেশি গোলের (৫৩) রেকর্ড। দ্বিতীয় দফা গোল হজমের পর শেষ দিকে ইংলিশদের সামনে আবার সুযোগ আসে ম্যাচে ফেরার। এবার স্পট কিকে বল লক্ষ্যেই রাখতে পারেননি কেইন। উড়িয়ে মারেন গোলবারের উপর দিয়ে। শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলে হেরে বিশ্বকাপে পথচলা শেষ হয়ে যায় ইংল্যান্ডের। এরপর মুষড়ে পড়ার কথা বলেছিলেন কেইন নিজেই। সোমবার প্রিমিয়ার লিগে ব্রেন্টফোর্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরছে টটেনহ্যাম। দুই দিন আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কন্তে বললেন, এখন বেশ ভালো আছেন কেইন। “আমরা বিশ্বমানের স্ট্রাইকারদের একজনকে নিয়ে কথা বলছি। একজন খেলোয়াড়ের জন্য ফুটবলে উত্তেজনাপূর্ণ মুহূর্ত থাকতে পারে, একই সঙ্গে এমন মুহূর্তও থাকতে পারে যা কিছুটা হতাশাজনক। কারণ সে একটি পেনাল্টি মিস করেছে, দ্বিতীয় পেনাল্টি।

তবে সে প্রথমবার গোল করেছিল।” ১৯৯৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে ব্রাজিলের বিপক্ষে টাইব্রেকারে হেরে যাওয়া ইতালি দলের অংশ ছিলেন সাবেক মিডফিল্ডার কন্তে। কেইনের পরিস্থিতি তিনি ভালোই অনুভব করতে পারছেন। “এটা নিশ্চিত যে, শুরুতে খারাপ লাগবে। তবে এরপর আপনি বুঝতে পারবেন যে, এগিয়ে যেতে হবে। ফুটবল আরও অনেক সুযোগ দেয় খেলাটিকে উপভোগ করার জন্য…সত্যি বলতে, আমি তাকে নিয়ে চিন্তিত নই। দেখলাম, এই দুই দিনে সে আমাদের সঙ্গে বেশ ভালো আছে।” প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট টেবিলে চতুর্থ স্থানে আছে টটেনহ্যাম। প্রথম তিন স্থানে যথাক্রমে আর্সেনাল, ম্যানচেস্টার সিটি ও নিউক্যাসল ইউনাইটেড।