কুমিল্লাকে হারিয়ে সিলেটের হ্যাটট্রিক জয়

5

বিপিএলের নবম আসরে মাশরাফি বিন মর্তুজার সিলেট স্ট্রাইকার্সকে থামানোর যেন কেউ নেই। টানা তিন ম্যাচে তিন জয় তুলে নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানটি বেশ পাকাপোক্ত ভাবে ধরে রেখেছে সিলেট। সোমবার নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ৫ উইকেটে হারিয়ে হ্যাটট্রিক জয় তুলে নিয়েছে সিলেট। মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সোমবার দুপুর ১ টা ৩০ মিনিটে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মুখোমুখি হয় সিলেট স্ট্রাইকার্স। টস জিতে কুমিল্লাকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান সিলেটের অধিনায়ক মাশরাফি। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে খুব বেশি সুবিধা করতে পারেননি কুমিল্লার ব্যাটাররা। লিটন-ইমরুলদের ব্যর্থতার দিনে জাকের আলি অনিক আর ডেডিড মালানের ব্যাটে ১৪৯ রানের লড়াকু পুঁজি পায় কুমিল্লা।

১৫০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে তৌহিদ হৃদয়ের দুর্দান্ত হাফ সেঞ্চুরিতে ১৭.৪ ওভারে ৫ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় সিলেট। অভিজ্ঞতা আর তারুণ্যের মিশেলে দুর্দান্ত এক বিপিএল পার করছে সিলেট স্ট্রাইকার্স। মুশফিক, পেরেরা বা আমিরের মত সিনিয়ররা যেমন সামনে থেকে পারফর্ম করছেন তেমন জাকির হোসেন বা তৌহিদ হৃদয়দের মতো তরুণরাও নিজেদের উজার করে দিচ্ছেন দলের জন্য। আর দলকে যেন ঠিক সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন দেশসেরা অধিনায়কখ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজা। কুমিল্লার বিপক্ষে ১৫০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ১২ রানেই পাকিস্তানি ওপেনার মোহাম্মদ হারিসের উইকেট হারায় সিলেট। তবে এরপরই নিজেদএর সামলে নেয় স্ট্রাইকার্স ব্যাটাররা। তিন নম্বরে নেমে তৌহিদ হৃদয় একাই টেনে গিয়েছেন সিলেটকে। তরুণ এই বাংলাদেশি ব্যাটারের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ১০ ওভারেই ৮৫ রান তুলে ফেলে সিলেট।

মাঝে শান্ত আর জাকির হাসান ফিরে গেলেও অনবদ্য ব্যাটিংয়ে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন তৌহিদ হৃদয়। শেষ পর্যন্ত ৩৭ বলে ৫৬ রান করে দলকে জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে ফেরেন এই ব্যাটার। এরপর অনুজ আকবর আলীকে সঙ্গে নিয়ে দলকে জয়ের বন্দরে ভেড়ান অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম। ১৪ বল বাকি থাকতেই ৫ উইকেটের জয় তুলে নিয়ে হ্যাটট্রিক জয়ের স্বাদ পায় সিলেট। একদিকে এবারের বিপিএলে সিলেট যেমন উড়ছে, ঠিক বিপরীত অবস্থা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচেই হারের মুখ দেখে পয়েন্ট টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে অবস্থান করছে ইমরুল কায়েসের দল। দুই ম্যাচেই তারা হেরেছে বড় ব্যবধানে।