কাতার বিশ্বকাপে এক গ্লাস পানির দাম ২৮০ টাকা

5

ফুটবল বিশ্বকাপ মানেই স্বাগতিক দেশে লাখো পর্যটকের ভিড়। যার বেশিরভাগই আসেন ইউরোপ ও আমেরিকা মহাদেশের বিভিন্ন দেশ থেকে। তাই তাদের বিনোদনের জন্য পানি এবং পানীয়ের ব্যবস্থা না থাকলে আগ্রহ হারান পর্যটকরা। মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম প্রধান দেশ কাতারে বিশ্বকাপ আয়োজনের শুরু থেকেই এ বিষয়গুলো নিয়ে আলদা করে নজর দিয়েছিল ফিফা। তাই তাদের অনুরোধে দেশের প্রচলিত আইনকানুন অনেকটাই শিথিল করে কাতার প্রশাসন। সমর্থকদের মদ্যপানের অনুমতিও দেয় তারা। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপ আসর চলাকালীন পানীয়ের দাম শুনলে চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যাবে আপনার।

আধা লিটার বিয়ারের জন্য এবার একজন সমর্থককে গুণতে হবে ১৪ ইউএস ডলার বা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৫০০ টাকা। অথচ রাশিয়া আসরে এই পরিমাণ বিয়ারের দাম ছিল মাত্র ৬১৯ টাকা। ব্রাজিলিয়ান সংবাদমাধ্যম গ্লোবো জানাচ্ছে, বিয়ার খেয়ে যাতে কেউ বেসালাম না হয়ে যায়, সেজন্য একজনকে সর্বোচ্চ চার গ্লাস বিয়ার বিক্রি করার নিয়ম করে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। তবে, অ্যালকোহলিক পানীয়ের দাম বেশি হলেও, তুলনামূলক কম আছে নন অ্যালকোহলিক পানীয়ের মূল্য। এক গ্লাস রুট বিয়ার বা অন্য পানীয়ের জন্য সমর্থকদের পকেট থেকে খরচ হবে ৮৫০ টাকার মতো। আর সমপরিমাণ পানির জন্য খরচ করতে হবে ২৮০ টাকারও কিছু বেশি।

তবে, পাবলিক প্লেসে বিয়ার পান করার বিষয়ে এখনও কঠোর অবস্থায় কাতার। কোনো অবস্থাতেই এটা করতে দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন তারা। গ্যালারিতেও পান করতে পারবেন না কেউ। নিরাপত্তারক্ষী বেষ্টিত বিশেষ জায়গায় শুধু অ্যালকোহল পান করা যাবে। বিয়ারের এ মূল্য হতাশ করেছে ইউরোপিয়ান দর্শকদের। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সবচেয়ে দামি বিয়ার বিক্রি করা হয় এমিরেটস স্টেডিয়ামে, ৭৮০ টাকায়। কিন্তু সেটাও কাতারের তুলনায় অনেক কম। এ অবস্থায় ম্যাচ ডে ছাড়া কাতারে অবস্থান করা নিয়ে দোটানায় ভুগছেন সমর্থকরা।