কাগজ সঙ্কটে শ্রীলঙ্কায় লাখ লাখ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা বাতিল

6

আর্থিক সঙ্কট তাই কাগজ কেনার টাকা নেই। এমন পরিস্থিতিতে শ্রীলঙ্কায় প্রায় ৩০ লাখ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। আনন্দবাজার জানিয়েছে, আর্থিক সঙ্কটে কলম্বোতে কাগজ আমদানিতে সঙ্কট। তাই প্রিন্টিং পেপার শেষ হয়ে গেছে। এজন্য ওয়েস্টার্ন প্রদেশের বিপুল পরিমাণ স্কুল শিক্ষার্থীর পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। দেশটির কর্তৃপক্ষ বলেছে, গতকাল সোমবার থেকে শুরু হওয়ার কথা এক সপ্তাহের টার্ম পরীক্ষা। কিন্তু ১৯৪৮ সালে দেশটি স্বাধীনতা অর্জনের পর থেকে সবচেয়ে কঠিন আর্থিক সঙ্কটের মুখে।

এজন্য সেখানে প্রয়োজনীয় কাগজের সরবরাহ নেই। ফলে কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য পরীক্ষা স্থগিত করেছে।ওয়েস্টার্ন প্রদেশের শিক্ষা বিভাগ বলেছে, প্রয়োজনীয় কাগজ ও কালি আমদানি করার মতো অর্থ নেই। তাই এসব কিনতে পারছে না তারা। ফলে স্কুলগুলোর প্রধানরা টেস্ট পরীক্ষা নিতে পারছেন না। নবম, দশম এবং একাদশ শ্রেণিতে টার্ম টেস্ট একটি অব্যাহত প্রক্রিয়া। এর মধ্য দিয়ে বছরের শেষে একজন শিক্ষার্থী পরবর্তী গ্রেডে অনুমোদন পাবে কিনা তা নির্ধারণ করা হয়। শ্রীলঙ্কা অর্থের চরম সঙ্কটে। দুই কোটি ২০ লাখ মানুষের এই দেশ এই সপ্তাহে ঘোষণা দিয়েছে যে, তাদের বৈদেশিক মুদ্রায় মারাত্মক সঙ্কট দেখে দিয়েছে। এ অবস্থায় সমস্যার সমাধানে আইএমএফের সহায়তা চায় দেশটি।

আইএমএফ গত শুক্রবার নিশ্চিত করেছে যে, প্রেসিডেন্ট রাজাপাকসের বেইলআউটের অর্থাৎ সহায়তা দিয়ে অভাব থেকে উত্তরণের অনুরোধ বিবেচনা করছে তারা। দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা এরইমধ্যে খাদ্য, ওষুধসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে ভারতের কাছ থেকে ১০০ কোটি ডলার ঋণ নিশ্চিত করেছে। নয়া দিল্লিতে অর্থমন্ত্রী বাসিল রাজাপাকসের সফরের পর এই সহায়তা নিশ্চিত হয়। এ বছর টিকে থাকার জন্য কলম্বোর প্রয়োজন প্রায় ৬৯০ কোটি ডলার। অন্যদিকে ফেব্রুয়ারির শেষে তাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ দাঁড়িয়েছে প্রায় ২৩০ কোটি ডলার। দেশটির মুদি দোকানে, তেলের দোকানে দীর্ঘ লাইন এখন। বিদ্যুত বিতরণে লোডশেডিং করছে। গুঁড়ো দুধ, চিনি, ডাল এবং চাল দেয়া হচ্ছে রেশনিং করে।