দৈনিক গৌড় বাংলা

সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাপনী অনুষ্ঠান বাতিল

ইসরায়েলবিরোধী বিক্ষোভের জেরে বৃহৎ পরিসরে অনুষ্ঠিতব্য স্নাতক সমাপনী অনুষ্ঠান বাতিল করেছে যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়। কয়েক সপ্তাহ ধরে চলছে বিক্ষোভ। ফিলিস্তিনের গাজায় হামলা বন্ধের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্র, ইরাক ছাড়াও নতুন করে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড ও মেক্সিকোতে। এ ছাড়া উত্তর আমেরিকা, এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবি, গাজায় আগ্রাসন বন্ধের পাশাপাশি ইসরায়েলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা আছে ও নেতানিয়াহু বাহিনীকে অস্ত্র সরবরাহ করে, এমন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে। আগামী ১৫ মে অনুষ্ঠানটি হওয়ার কথা ছিল। তবে অনুষ্ঠানটি চলতি সপ্তাহে এবং পরের সপ্তাহে স্বল্প পরিসরে স্কুলভিত্তিক অনুষ্ঠান করা হবে বলে জানা গেছে।

গত এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসরায়েলবিরোধী বিক্ষোভের শুরু হয়। এর পর থেকে এ বিক্ষোভ ওয়াশিংটন ডিসিসহ যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫টি রাজ্যের প্রায় ১৪০টি কলেজে ছড়িয়ে পড়েছে। নিউ ইয়র্ক সিটি বিশ্ববিদ্যালয় বলেছে, স্নাতক সমাপনী অনুষ্ঠান আয়োজনের বিষয়ে শিক্ষার্থী নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পর তারা এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে। গত কয়েক সপ্তাহের ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভ সমাবেশের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজগুলোতে স্নাতক সমাপনী অনুষ্ঠান আয়োজনের পরিকল্পনা ব্যাহত হয়েছে। কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মুখপাত্র বেন চ্যাং বলেন, ‘আমাদের ক্যাম্পাসে বড় পরিসরে সমাপনী অনুষ্ঠান আয়োজনের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। দুর্ভাগ্যজনক বিষয় হলো- এমন আশঙ্কা অমূলক নয়।

এমন পরিস্থিতি নিয়ে শিক্ষার্থীদের মতো আমরাও গভীরভাবে হতাশ।’ চ্যাং আরো বলেন, অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একটি বিকল্প জায়গা খুঁজছিল। তবে শিক্ষার্থী, তাঁদের পরিবারের সদস্য, অতিথিরাসহ ৫০ হাজারের বেশি মানুষকে ধারণ করার মতো কোনো জায়গার ব্যবস্থা করা যায়নি। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শুরু হওয়া বিক্ষোভ থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ২ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থী ও শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত সপ্তাহে আপার ম্যানহাটানে অবস্থিত কলাম্বিয়ার একটি ক্যাম্পাস থেকে ফিলিস্তিনপন্থী বিক্ষোভকারীদের তাড়িয়ে দেওয়ার জন্য পুলিশ ডাকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরে সেখান থেকে শতাধিক বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে স্নাতক সমাপনী অনুষ্ঠান বাতিল করেছে ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়াও।

About The Author

This will close in 0 seconds