কলকাতার সিনেমায় বুবলীর অভিষেক

7

ভৌগলিক সীমারেখায় আলাদা হলেও ভাষাগত কারণে দুই বাংলার মেলবন্ধন চিরায়ত। যেটার স্পষ্ট ছাপ সিনেমা অঙ্গনে বিরাজমান। ঢালিউডের নায়ক-নায়িকারা যেমন কলকাতার সিনেমায় যুগ যুগ ধরে কাজ করে আসছেন, তেমনি বিপরীত চিত্রও দেখা যায়। এই বিনিময় তথা সম্প্রীতির নতুন সংযোজন শবনম বুবলী। টলিউডের সিনেমায় নাম লেখালেন তিনি। ছবির নাম ‘ফ্ল্যাশব্যাক’। মজার ব্যাপার হলো, এই ছবির নেপথ্যেও আছেন বাংলাদেশের কুশীলব। যেমন ছবিটি পরিচালনা করছেন ঢাকার রাশেদ রাহা। আর ছবির চিত্রনাট্য সাজিয়েছেন ঢাকারই খায়রুল বাসার নির্ঝর। নতুন ছবির খবরটি বুবলী নিজেই নিশ্চিত করলেন।

বললেন, “আমার প্রথম কলকাতার সিনেমা ‘ফ্ল্যাশব্যাক’ শুরু করতে যাচ্ছি। গতকাল রোববার বিকালে ভারতে সংবাদ সম্মেলনে ছবিটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবো। অনুগ্রহ করে সবাই আমাকে সবসময়ের মতো আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসায় রাখবেন।’ বুবলী জানালেন, এই ছবিতে তার সঙ্গে আছেন টলিউডের কিংবদন্তি নির্মাতা ও অভিনেতা কৌশিক গাঙ্গুলি। এ ছাড়া ‘মন্টু পাইলট’ খ্যাত হালের তারকা সৌরভ দাসকেও দেখা যাবে। ছবিটির প্রযোজনায় রয়েছে ব্লু হোয়েল এন্টারটেইনমেন্ট। এদিকে কলকাতার গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেলো, থ্রিলারধর্মী এই ছবির কেন্দ্রে এক লেখক। সেই চরিত্রে অভিনয় করছেন কৌশিক গাঙ্গুলি।

ডিকে নামের এক ভবঘুরের ভূমিকায় সৌরভ আর বুবলীর চরিত্রের নাম শ্বেতা। তিন ভিন্ন ধারার মানুষের জীবন অদ্ভুতভাবে এক বিন্দুতে মিলিত হয়।নির্মাতা রাশেদ রাহা বলেছেন, ‘‘ছবিতে ‘অঞ্জন’ চরিত্রে কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় অনবদ্য। তার বিসর্জন, বিজয়ার পরে দেখেছি। তখন থেকেই গুণমুগ্ধ। এবার সামনে থেকে অভিনয় দেখলাম। পরিচালনার বদলে অভিনয় নিয়ে থাকলে একইভাবে কৌশিকদা জনপ্রিয় হতেন। অন্যদিকে শ্বেতা ও ডিকের চরিত্রে সৌরভ ও বুবলি অসাধারণ। ছবিতে আরও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র রয়েছে।

সেখানে দেখা যাবে একঝাঁক তারকা অভিনেতাকে। তাদের নাম ক্রমশ প্রকাশ্য।’’ জানা গেছে, ইতোপূর্বে কলকাতার বিভিন্ন স্থানে ছবির অধিকাংশ চিত্রায়ন শেষ হয়েছে। বাকি রয়েছে ক্লাইম্যাক্স দৃশ্য। সেটার জন্য আগামী সপ্তাহেই পুরো টিম যাবে পশ্চিমবঙ্গের উত্তরাঞ্চলে। নির্মাণ শেষে ছবিটি ভারতেই মুক্তি পাবে। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের অনেক অভিনেত্রী কলকাতার ছবিতে কাজ করেছেন। এর মধ্যে সর্বাধিক সাফল্য পেয়েছেন জয়া আহসান। এছাড়াও কাজ করেছেন রাফিয়াত রশিদ মিথিলা, অপু বিশ্বাস, কুসুম সিকদার, নিপুণ, বিদ্যা সিনহা মিমসহ অনেকে।