ওয়ানডে সিরিজ হারল বাংলাদেশের মেয়েরা

112

01-Bangladesh Womansপাঁচ ম্যাচ সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে এসে সিরিজ নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ আফ্রিকার মেয়েরা। গতকাল বুধবার কক্সবাজারে বাংলাদেশকে ৯৫ রানে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ৩-১ ব্যবধানে সিরিজ নিশ্চিত করেছে প্রোটিয়ারা। সিরিজের শেষ ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে একই ভেন্যুতে আগামীকাল শুক্রবার। আগে ব্যাটিং করে বাংলাদেশকে জয়ের জন্য ২৫২ রানের লক্ষ্য বেধে দেয় সফরকারীরা। কিন্তু শুরুতেই ছন্দপতন ঘটে বাংলাদেশের টপ অর্ডারে। এক প্রান্তে ফারজানা হক আগলে রাখলেও দ্রুত চার উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। ৪১ রানে চতুর্থ উইকেট পতনের পর ক্রিজে নামেন সাবেক অধিনায়ক সালমা খাতুন। পঞ্চম উইকেটে ফারজানাকে সঙ্গে নিয়ে ৭১ রানের জুটি গড়েন সালমা। তিনি আউট হওয়ার আগে খেলেছেন ৩০ রানের ইনিংস। চলতি সিরিজে এটাই তার সর্বোচ্চ সংগ্রহ। এরপর শায়লা শারমিন দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করলেও জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। ১১ বলে ৩ চারে ১৫ রান করে বিদায় নেন শায়লা। বাংলাদেশের পক্ষে ফারাজানাই সর্বোচ্চ রান করেছেন। ওয়ান ডাউনে নেমে তিনি ক্যারিয়ার সেরা ৬৭ রানের ইনিংস খেলে নবম উইকেট হিসেবে মার্সিয়া লেতসাওলার বলে বোল্ড হন। ১৪৪ বলে ৪ চারে তিনি তার ইনিংসটি সাজিয়েছেন। সবমিলিয়ে ৫০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রানেই থেমে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নিয়েছেন আয়োবোঙ্গা খাকা। এ ছাড়া মসলিন ডেনিয়েলস ও মার্সিয়া লেতসাওলা নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। একটি উইকেট নিয়েছেন মারিজান ক্যাপ। এর আগে টসে জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ডেন ফন নাইকার্ক। টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ও সাবেক অধিনায়ক মিগনন ডু প্রিজের দৃঢ়তায় দক্ষিণ আফ্রিকা নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান সংগ্রহ করে। মিগনন দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৯ রানের ইনিংস খেলেছেন। তার এটা ক্যারিয়ারের ১১তম হাফসেঞ্চুরি। এছাড়া অন্য ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ক্লো ট্রাইওন ৪৭, লিজেল লি ২৮,  ডেন ফন নাইকার্ক অপরাজিত ২৬ রান করেছেন। বাংলাদেশের বোলাদের মধ্যে সবচেয়ে সফল বোলার গত ম্যাচের সেরা খাদিজা-তুল-কোবরা। এই অফস্পিনার ৪৮ রান খরচায় নিয়েছেন তিনটি উইকেট। এ ছাড়া রুমানা আহমেদ দুটি ও জাহানারা আলম নিয়েছেন একটি করে উইকেট।