ওমানের উপকূলে তেল ট্যাংকারে ড্রোন হামলা

3

মধ্যপ্রাচ্যের ওমান উপসাগরে একটি তেলবাহী ট্যাংকারে ড্রোন হামলার ঘটনা ঘটেছে। ট্যাংকারটিতে কারা হামলা করেছে তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। তবে গত মঙ্গলবারের হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল। কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, জাহাজটি একজন ইসরায়েলি ধনকুবেরের। যুক্তরাষ্ট্রের হোয়াইট হাউজের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান বলেন, ‘প্রাপ্ত তথ্য পর্যালোচনা করার পর, আমরা বিশ্বাস করি সম্ভবত ইরান এই হামলা চালিয়েছে। মার্কিন কেন্দ্রীয় কমান্ডের কমান্ডার জেনারেল মাইকেল এরিক কুরিলা গত বুধবার জানান, ইসরায়েলি ট্যাংকারটি ছিল লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী জাহাজ। একে প্যাসিফিক জিরকন বলা হয়। ট্যাংকারটি সিঙ্গাপুর ভিত্তিক প্যাসিফিক শিপিং দ্বারা পরিচালিত হয়।

এটি ইসরায়েলি টাইকুন ইদান ওফারের মালিকানাধীন একটি সংস্থা। বিবৃতিতে প্যাসিফিক শিপিং কোম্পানিটি জানিয়েছে, তেলবাহী ট্যাংকারটি প্যাসিফিক জিরকন গ্যাস বহন করছিল যখন এটি ওমানের উপকূল থেকে ২৪০ কিলোমিটার দূরে একটি ক্ষেপণাস্ত্র দ্বারা আঘাতপ্রাপ্ত হয়। তারা ক্রুদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। কোনো আহত বা দূষণের তথ্য পাওয়া যায়নি। সব ক্রু নিরাপদ ও ভালো আছেন। ট্যাংকারের কাঠামো অল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে কোনো পানি ঢোকেনি। তেল ট্যাংকারে হামলা চালিয়েছে ইরান। ইরান কর্তৃক রাশিয়াকে সরবরাহ করা ড্রোনের মতোই এক ড্রোন দিয়ে এই হামলা চালানো হয়েছিল। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ইসরায়েলি কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন।