ঐতিহাসিক জয়ের দেখা পেল ভারত

1

দিনের শুরুতে ম্যাচে ছিল অনেকটাই ভারসাম্য। কিন্তু পরে কয়েক ওভারের মধ্যেই ভোজবাজির মতো বদলে গেল সব। স্নেহ রানা ও রাজেশ্বরী গায়কোয়াড়ের স্পিনে অস্ট্রেলিয়া গুটিয়ে গেল দ্রুতই। ছোট রান তাড়ায় জিতে ভারত পেল ঐতিহাসিক এক জয়ের দেখা। মুম্বাই টেস্টে টার্নিং ও নিচু বাউন্সের উইকেটে স্পিনারদের জবাব পায়নি অস্ট্রেলিয়া। ভারত জিতে যায় ৮ উইকেটে। নারী টেস্টে দুই দলের লড়াই শুরু ১৯৭৭ সালের জানুয়ারিতে। সেই থেকে এই ম্যাচের আগ পর্যন্ত ১০ টেস্টের ৬টি ড্র হয়েছিল, ৪টিতে জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। ভারত জয়ের স্বাদ পেল এই প্রথম। ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ম্যাচের প্রথম ইনিংসেই ১৮৭ রানের লিড নিয়ে বড় ব্যবধান গড়ে ফেলে ভারত। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে বেশ লড়াই করে অস্ট্রেলিয়া।

তৃতীয় দিনে একপর্যায়ে তাদের রান ছিল ৩ উইকেটে ২০৬। কিন্তু শেষ সেশনে ভারতীয় অধিনায়ক হারমানপ্রিত কৌর গুরুত্বপূর্ণ দুটি ব্রেক থ্রু এনে দেন দলকে। অনিয়মিত এই স্পিনার আউট করে দেন প্রতিরোধ গড়া দুই ব্যাটার তাহলিয়া ম্যাকগ্রা (৭৩) ও অ্যালিসা হিলিকে (৩২)। অ্যানাবেল সাদারল্যান্ড ও অ্যাশলি গার্ডনার তবু লড়াই করে দিনটি পার করে দেন। ৫ উইকেট বাকি রেখে ৪৬ রানে এগিয়ে থেকে শেষ দিনের খেলা শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। বড় ধাক্কা খায় তারা দিনের শুরুতেই। আগের দিনের স্কোরেই গার্ডনার এলবিডব্লিউ হয়ে যান পুজা ভাস্ত্রাকারের ইয়র্ক লেংথের বলে।

সাদারল্যান্ড ও জেন জোনাসেন পরের জুটিতে লড়াই চালিয়ে যান আরও দশ ওভার। এরপরই ভারতীয় স্পিনে তাদের ইনিংস ভেঙে পড়ে হুড়মুড়িয়ে। স্নেহ রানাকে সুইপ করার চেষ্টায় ২৭ রানে আউট হয়ে যান প্রায় দুই ঘণ্টা ক্রিজে থাকা সাদারল্যান্ড। পরের বলেই ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড নতুন ব্যাটার অ্যালান কিং। এরপর বাঁহাতি স্পিনার রাজেশ্বরীর অসাধারণ দুটি ডেলিভারিতে দ্রতই আউট হন কিম গার্থ ও জোনাসেন। অস্ট্রেলিয়া অলআউট হয় ২৬১ রানে। ৫ উইকেট হারিয়ে এ দিন আর ¯্রফে ২৮ রান যোগ করতে পারে তারা। শেষ ইনিংসে ৭৫ রান তাড়ায় ২ উইকেট হারালেও খুব একটা বেগ পেতে হয়নি ভারতকে।

কাজ সেরে ফেলে তারা ১৮.৪ ওভারে। অপরাজিত ৩৮ রান করে দলকে জিতিয়ে ফেরেন স্মৃতি মান্ধানা। প্রথম ইনিংসের ৩ উইকেটের সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংসে ৪টি নিয়ে প্লেয়ার অব দা ম্যাচ অফ স্পিনার স্নেহ রানা। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এক টেস্টে ভারতের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ১৯৮৪ সালে শশি গুপ্তার ১০০ রানে ৮ উইকেট। তবে স্পিনে স্নেহ রানাই প্রথম ৭ উইকেট শিকারি। দুই বছর পর টেস্টে ফেরা ভারত এই নিয়ে টানা দুটি টেস্ট জিতল নারী ক্রিকেটের দুই পরাশক্তির বিপক্ষে। গত সপ্তাহে মুম্বাইয়েই স্পিনারদের নৈপুণ্যে তারা ইংল্যান্ডকে ৩৪৭ রানে বিধ্বস্ত করে রেকর্ড ব্যবধানের জয় পায়। ১০ উইকেট নিয়ে সেই ম্যাচের সেরা ছিলেন অফ স্পিনার দিপ্তী শার্মা।