এমবাপের গোলে পিএসজির ঘাম ঝরানো জয়

5

কিলিয়ান এমবাপে নষ্ট করলেন সুবর্ণ সুযোগ, পিএসজির সামনে জাগল পয়েন্ট হারানোর শঙ্কা। পরে অবশ্য ফরাসি ফরোয়ার্ডই গড়ে দিলেন পার্থক্য। শেষ সময়ের গোলে রেনকে হারিয়ে লিগ টেবিলে ১৬ পয়েন্টে এগিয়ে গেল মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল। প্যারিসে শুক্রবার রাতে লিগ ওয়ানের ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে পিএসজি। লিগে এই নিয়ে টানা ১৫ ম্যাচে অপরাজিত রইল দলটি। আসরে তারা একবারই হেরেছে, গত অক্টোবরে এই রেনের মাঠে ২-০ গোলে। সপ্তম মিনিটে ম্যাচের প্রথম ভালো সুযোগটা পায় রেন। ডি-বক্সের সামনে থেকে ফরাসি মিডফিল্ডার বাঁজামাঁ বোয়েজোর শট দারুণ দক্ষতায় ফিরিয়ে জাল অক্ষত রাখেন গোলরক্ষক কেইলর নাভাস। আগের ম্যাচে শিরোপাধারী লিলকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দেওয়া পিএসজি প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগটা পায় ৩৪তম মিনিটে। বাঁ দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে এমবাপের নেওয়া শট দূরের পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়। প্রথমার্ধে ৭০ শতাংশ বল দখলে রেখে গোলের জন্য পিএসজির নেওয়া পাঁচ শটের একটিও লক্ষ্যে ছিল না। বিরতির আগে যদিও তারা এগিয়ে যেতে পারত। মার্কো ভেরাত্তির থ্রু বল ধরে এমবাপের নিচু শট প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডার ত্রাওরের পায়ের লেগে পোষ্টে লাগে।
৬২তম মিনিটে দারুণ একটি সুযোগ হাতছাড়া করেন এমবাপে। লিওনেল মেসির পাস খুঁজে পায় ইউলিয়ান ড্রাক্সলারকে। এই মিডফিল্ডারের বাড়ানো বল ধরে ডি-বক্সে ঢুকে ওয়ান-অন-ওয়ানে বাইরে মারেন বিশ্বকাপ জয়ী তারকা। পরের মিনিটে তিনি জালে বল পাঠালেও অফসাইডের পতাকা তোলেন লাইন্সম্যান। অবশেষে দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে মেলে বহুল কাক্সিক্ষত গোল। মেসির বাড়ানো বল বাঁ দিকে পেয়ে নিচু শটে লক্ষ্যভেদ করেন এমবাপে। পুরো ম্যাচে এই একটি শটই কেবল লক্ষ্যে রাখতে পারে স্বাগতিকরা। ২৪ ম্যাচে ১৮ জয় ও ৫ ড্রয়ে পিএসজির পয়েন্ট হলো ৫৯। এক ম্যাচ কম খেলে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে মার্সেই। তিন নম্বরে নিসের ৪২ পয়েন্ট। পিএসজির সমান ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে আছে রেন। লিগে টানা চার জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে আগামী মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মাঠে নামতে যাচ্ছে পিএসজি। শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ঘরের মাঠে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে খেলবে মেসি-এমবাপেরা।