এমপিওভুক্তির তালিকা চূড়ান্ত, প্রকাশ আগামী সপ্তাহে

5

নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন নেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার এ তালিকা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর কথা রয়েছে। তবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় তা আগামী সপ্তাহে প্রকাশ করা হবে।
শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে সারাদেশে দুই হাজারের বেশি সাধারণ, কারিগরি ও মাদ্রাসাকে তালিকাভুক্ত করে একটি খসড়া তৈরি করা হয়েছে। সেটি চূড়ান্ত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানো হয়। সেই তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন নেয়া হয়েছে। সেটি বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হতে পারে বলে জানা যায়।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর সিদ্দীক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এমপিওভুক্তির তালিকা প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। তালিকা চূড়ান্ত হয়ে এলে তা প্রকাশ করা হবে।
তবে মন্ত্রণালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এমপিওভুক্তির তালিকা বৃহস্পতিবার পাঠানো হতে পারে। তবে তালিকা চূড়ান্ত হয়ে এলেও তা এখনই প্রকাশ করা হবে না। শিক্ষামন্ত্রী সুস্থ হয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তালিকা প্রকাশ করবেন। আগামী সপ্তাহে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হতে পারে।
এর আগে ৫ জুন সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এক সংবাদ সম্মেলনে দুই হাজারের বেশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা দেয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি। স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির অর্থাৎ মান্থলি পে-অর্ডারের আওতায় প্রতি মাসে নির্দিষ্ট অঙ্কের সরকারি অনুদান পেয়ে থাকে। বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির আবেদন যাচাই-বাছাইয়ে গত বছরের ৭ নভেম্বর ৯ সদস্যের কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কমিটিকে সহায়তা করতে চার সদস্যের একটি উপকমিটিও গঠন করা হয়।
গত ৩০ সেপ্টেম্বর বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (স্কুল ও কলেজ) এমপিওভুক্ত করতে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বিজ্ঞপ্তিতে ১০ থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করতে বলা হয়।
২০১৯ সালে ২ হাজার ৬২২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার পর নতুন করে আর কোনো প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়নি। নতুন অর্থবছরের বাজেট বরাদ্দের যে প্রস্তাব শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো হয়েছে, তাতে নতুন প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির জন্য ২৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখার কথা বলা হয়। এর মধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের জন্য ২০০ কোটি টাকা এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের জন্য ৫০ কোটি টাকা। খবর এফএনএস।