এবার যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় ‘পরাণ’

2

সুপারহিট ছবি ‘পরাণ’ এবার মুক্তি পেতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায়। দেশের বাইরে সিডনিতে মুক্তির পরে সাড়া ফেলেছিল রায়হান রাফী পরিচালিত আলোচিত এ ছবিটি। পরাণ’র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান লাইভ টেকনোলোজিস আশা করছে, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডাতেও সাফল্য বজায় রাখবে এ ছবি। গত ঈদুল আজহায় মুক্তি পেয়েছিলেন ‘পরাণ’। এরপর রীতিমত অবাক করে দেয় গোটা চলচ্চিত্রাঙ্গন। মুক্তির ৫০ দিন পার হলেও এখনও দর্শকের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে মিম, শরিফুল রাজ, ইয়াশ রোহান, রাশেদ মামুন, নাসির উদ্দিন, শহিদুজ্জামান সেলিম, রোজি সিদ্দিকী অভিনীত ‘পরাণ’। ছবিটি চালিয়ে দেশের সিনেমা হল মালিকরা বলছেন, শাকিব খানের ‘গলুই’র পর ‘পরাণ’ দিয়ে দেশের সিনেমার অচলাবস্থা অনেকটা কাটিয়ে তুলেছেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ‘পরাণ’ এর সাফল্য দেখে অন্যান্য ছবির প্রযোজকরা সিনেমা মুক্তি দেয়ার সাহস পাচ্ছেন। সেই ধারাবাহিকতায় ‘হাওয়া’ ছবিটিও দর্শক গ্রহণ করেছে। মুক্তির অপেক্ষায় আছে ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’, ‘অপারেশন সুন্দরবন’, ‘দামাল’, ‘বিউটি সার্কাস’ সহ আরও বেশ কিছু ছবি। এদিকে, প্রবাসীদের মধ্যেও ‘পরাণ’ আগ্রহ তৈরি করেছে। তাই সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে বায়োস্কোপ ফিল্মসের পরিবেশনায় ‘পরাণ’ যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় মুক্তি পেতে যাচ্ছে। লাইভ টেকনোলজিসের পরিচালক পরিচালক ও পরাণ’র প্রযোজক ইয়াসির আরাফাত বলেন, আমরা একটা পরিচ্ছন্ন সিনেমা তৈরি করেছি। মুক্তির অষ্টম সপ্তাহেও দর্শকের কাছে একেবারে নতুন ছবি ‘পরাণ’। এখনও সিনেপ্লেক্সসহ সিঙ্গেল স্ক্রিনে হাউজফুল যাচ্ছে।

‘দেশের কয়েকটি বন্ধ সিনেমা হল আবার খুলেছে। সেই সব হলে সাফল্যের সঙ্গে পরাণ চলছে। এবার যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা প্রবাসীদের জন্য সিনেমাটি মুক্তি দেয়া হচ্ছে। আগামীতে ইউরোপেও যাবে। আশা করছি, সবাই সিনেমাটি ভালোভাবেই উপভোগ করবে।’ যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় ‘পরাণ’ ছবির পরিবেশক বায়োস্কোপ ফিল্মসের সিইও রাজ হামিদ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার বাঙালিরা ‘পরাণ’ দেখার জন্য মুখিয়ে রয়েছে। অবশেষে সবার আগ্রহে সিনেমাটি সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে মুক্তি দিচ্ছি। আমরা দারুণ আশাবাদী। দেবীর ‘পরাণ’ নিয়ে দর্শকের এত আগ্রহ দেখছি। নিয়মিত এমন গল্পের সিনেমা মুক্তি পেলে বাংলা সিনেমার দর্শক বাড়বে। পাশাপাশি সিনেমার বাজারও বড় হবে।