এবার ইন্দোনেশিয়া যাচ্ছে ‘তুরঙ্গমী’

2

আগামী শনিবার (২২ থেকে ৩০ অক্টোবর) ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় অনুষ্ঠিতব্য ইন্দোনেশিয়া ইন্টারন্যাশনাল কালচার ফেস্টিভ্যাল ২০২২-এ অংশগ্রহণ করবে বাংলাদেশের নাচের দল তুরঙ্গমী রেপার্টরি ড্যান্স থিয়েটার। ইন্দোনেশিয়া সরকারের আমন্ত্রণে ও পৃষ্ঠপোষকতায় এই উৎসবে অংশ নেবেন তুরঙ্গমীর আর্টিস্টিক ডিরেক্টর পূজা সেনগুপ্ত। উৎসবে পূজা বাংলাদেশের আরতি নাচের উপর কর্মাশালা পরিচালনা করবেন, যেখানে আন্তর্জাতিক নৃত্য পেশাদাররা অংশগ্রহণ করবেন। এই উৎসবের অংশ হিসেবে জাভার বাদুং শহরে অনুষ্ঠিতব্য জনপ্রিয় বাদুং আন্তর্জাতিক উৎসবেও অংশ নেবেন পূজা সেনগুপ্ত।

এই উৎসবে তুরঙ্গমীর প্রযোজনা নন্দিনী মঞ্চায়িত হবে। এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, এই বছর এপ্রিলে ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলাতে ইউনেস্কো, আইটিআই এবং ফিলিপাইন সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় আয়োজিত ‘এসডিজি (সাসটেইনাবল ডেপলপমেন্ট গোল) রেসিলি-আর্ট ফেস্টিভ্যাল ২০২২’ -এ বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন পূজা সেনগুপ্ত। এ ছাড়া চলতি বছরের জুলাই মাসে দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের আমন্ত্রণে প্রথম বাংলাদেশি দল হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়ার দেইগু শহরে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম নাচের প্যারেডে পূজা সেনগুপ্তর নেতৃত্বে অংশ নিয়েছে তুরঙ্গমী। ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বাংলাদেশের নাচের নিজস্ব ধারা নির্মাণ ও নাচে পেশাদারিত্ব অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে তুরঙ্গমী।

এর মধ্য ২০১৪ ব্যাংকক ফেস্টিভ্যাল, ২০১৭ ভিয়েতনাম আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব, ২০১৭ দিল্লী ইন্টারন্যাশনাল আর্ট ফেস্টিভ্যাল, ২০১৮ চীন সিল্ক রোড এক্সপো- ডুঙহুয়াং কনফারেন্স, ২০১৮ রাশিয়া সেন্ট পিটার্সবার্গ নৃত্য শিক্ষা সম্মেলন, ২০১৮-২২ ফিলিপাইন ড্যান্স এক্সচেঞ্জ, ২০১৯ প্যারিসে জাতিসংঘের ইউনেস্কো সদর দপ্তরে পূজা সেনগুপ্তর ভাষণ, ২০২২ ম্যানিলাতে আইটিআই ও জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট উৎসব, ২০২২ দেইগু কালারফুল ফেস্টিভ্যাল এ অংশগ্রহণ উল্লেখযোগ্য। কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৯ সালে প্রথম বাংলাদেশি নৃত্যশিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে তুরঙ্গমী স্কুল অব ড্যান্স এবং ব্যক্তিগতভাবে পূজা সেনগুপ্ত ইন্টারন্যাশনাল ড্যান্স কাউন্সিল ইউনেস্কোর সদস্যপদ লাভ করেন। সংস্কৃতিকে উদ্যোগ হিসেবে গড়ে তরুণ শিল্পীদের কাজের ক্ষেত্র নির্মাণের জন্য ২০১৮ সালে সম্মানজনক উদ্যোক্তা পুরস্কার ‘নুরুল কাদের সম্মাননা’ লাভ করেন পূজা সেনগুপ্ত।