এগিয়ে চলছে মহানন্দা নদী খনন কাজ : জেলা প্রশাসকের প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন

55

অবশেষ প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত চাঁপাইনবাবগঞ্জের মহানন্দা নদী খনন কাজ শুরু হয়ে এগিয়ে চলেছে। শুক্রবার সুলতানগঞ্জে জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এসময় তিনি নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর সঙ্গেও কথা বলেন। এ-সময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বেন্দ্রনাথ উরাঁও, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নবাবগঞ্জ পওর বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ সাহিদুল আলম, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আতিকুর রহমানসহ অন্যান্য প্রকৌশলীগণ।
স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ সাহিদুল আলম জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর উপজেলায় মহানন্দা নদী খনন ও রাবার ড্যাম প্রকল্পের আওতায় মহানন্দা নদীর বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর ৫শ মিটার ভাটিতে দেশে সববৃহৎ একটি রাবারড্যাম নির্মাণ করা হবে। রাবার-ড্যামের দৈর্ঘ হবে ৩৫৩ মিটার। রাবার-ড্যামের উজানে ১০ কিলোমিটার ও ভাটিতে ২৬ কিলোমিটার নদী খনন কাজ চলমান রয়েছে। তিনি জানানম চলমান নদী খনন কাজ পরির্দশন ছাড়াও জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক জুন ২০১৮ সালে সদ্য সমাপ্তকৃত “পদ্মা নদীর ভাঙ্গন হতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার আলাতুলি এলাকা রক্ষা” শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বাস্তবায়িত ৭ দশমিক ২২০ কি.মি. নদী তীর সংরক্ষণ কাজও পরিদর্শন করেন এবং প্রকল্পের সুবিধাভোগী হতদরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবনমান সম্পর্কে খোঁজ খবর নেন। এসময় তিনি তাদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য স্যানিটেশন, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ, গৃহ নির্মাণসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেন। তিনি নদী ভাঙ্গন কবলিত ২ টি বিদ্যালয়ও পরিদর্শন করেন এবং নবাবগঞ্জ সদর-কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।
উল্লেখ্য, মহানন্দা নদীটি ভারত থেকে উৎপত্তি হয়ে বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহর হতে প্রায় ৫০ কি. মি. উত্তরে ভোলাহাট উপজেলার ভোলাহাট ইউনিয়ন দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে ভোলাহাট, গোমস্তাপুর, শিবগঞ্জ, নাচোল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ হয়ে রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার দেবীনগর নামক স্থানে পদ্মা নদীতে পতিত হয়েছে। নদীটির বাংলাদেশ অংশে দৈর্ঘ্য প্রায় ৯৫ কি. মি.। বর্তমানে নদীতে পলি জমে এর নাব্যতা হ্রাস এবং নদীর প্রশস্ততা ও প্রবাহ কমে গেছে, ফলে নৌ চলাচল, মৎস্য চাষে অসুবিধা হচ্ছে। এছাড়া শুষ্ক মৌসুমে নদীতে পানি প্রবাহ হ্রাস পাওয়ায় ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তরও নেমে যায়, ফলে গভীর-অগভীর নলকূপ দ্বারা সেচ কাজ ব্যয়বহুল হয়ে পড়ে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বর্ণিত পানির প্রবাহ বৃদ্ধি, জলাবদ্ধতা নিরসন, সেচের পানি প্রাপ্যতা বৃদ্ধি, জীববৈচিত্রের উন্নয়ন, নাব্যতা বৃদ্ধি ও মৎস্য উন্নয়ন করা যাবে এবং মৎস্য চাষের ব্যাপক ক্ষেত্র তৈরি হবে, ভূ গর্ভস্থ পানি পূনর্ভরনের মাধ্যমে পানির স্তর বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে।
স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের শীর্ষ এ কর্মকর্তা জানান, ডকইয়ার্ড এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লি:, বাংলাদেশ নৌবাহিনী, সোনাকান্দা বন্দর, নারায়নগঞ্জ মহানন্দা নদী খননের দায়িত্ব পেয়েছে। অপর দিকে রাবারড্যাম নির্মাণ কাজের দরপত্র আহবান করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সফরে এসে মহানন্দা নদী খনন ও রাবারড্যাম নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দেন। তাঁর দেওয়া প্রতিশ্রুতি ৮ বছর পর গত বছরের ১৬ জানুয়ারি ১৫৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩৬ কিলোমিটার মহানন্দা নদী খনন ও রাবারড্যাম নির্মাণ প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) অনুমোদন দেয়।