এক অটোতে ২৭ যাত্রী, পুলিশও অবাক

15

দ্রুতগতিতে যাওয়া একটি অটোরিকশাকে থামার সংকেত দেওয়া হল; সেটিতো থামলোই না উল্টো গতি বাড়িয়ে পালানোর চেষ্টা করল। ধাওয়া করে শেষ পর্যন্ত সেটিকে ধরল বটে পুলিশ, কিন্তু অটোর যাত্রীসংখ্যা দেখে চোখ কপালে উঠে যায় তাদের। ছোট সেই যানে যে তখন শিশু, বয়স্কসহ ২৭ যাত্রী! ঘটনা ভারতের উত্তর প্রদেশের ফতেহপুরের; মাত্রাতিরিক্ত গতিতে চলা এবং ঠেসে যাত্রী ভরার দায়ে অটোটিকে পরে পুলিশ জব্দও করেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। অনলাইনে অটোটি থেকে ২৭ যাত্রীর একে একে বেরিয়ে আসার একটি ভিডিও এরইমধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে। ভিডিওতে এক পুলিশ সদস্যকে অটো থেকে বেরিয়ে আসা যাত্রীর সংখ্যা গুণতেও দেখা গেছে। একটি অটোরিকশায় সাধারণত তিনজন উঠতে পারেন। কিছুকিছু অটোরিকশায় সামান্য পরিবর্তন আনা হয়, যেন ৬ জন পর্যন্ত বসতে পারেন। স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশ প্রথমে গতিসীমা অতিক্রম করে চলা ওই অটোটিকে থামতে বলেছিল।

কিন্তু চালক সেই নির্দেশ না শুনে উল্টো গতি বাড়িয়ে পালানোর চেষ্টা করে। পুলিশ পরে ওই টুকটুকটিকে (স্থানীয়ভাবে অটোরিকশা এই নামেই পরিচিত) ধাওয়া করে এবং থামতে বাধ্য করে। “এরপর পুলিশ যানটির ভেতর দুই ডজনের বেশি যাত্রী দেখে তাজ্জব বনে যায়,” টাইমস অব ইন্ডিয়াকে এমনটাই বলেছেন ফতেহপুর পুলিশের সুপারিনটেন্ডেন্ট রাজেশ কুমার। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই ঘটনার ভিডিও বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে; এরইমধ্যে ভিডিওটি কয়েক লাখ ব্যবহারকারী দেখে ফেলেছেন, যাদের অনেকেই ঘটনাটি নিয়ে মজা করতেও ছাড়ছেন না। কারও কারও মতে, এই ঘটনা অবশ্যই ‘বিশ্বরেকর্ডের’ স্বীকৃতি পাওয়ার দাবিদার। অনেকে আবার ভারতে জনসংখ্যার তুলনায় গণপরিবহন যে পর্যাপ্ত নয়, সেদিকে দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেছেন। ভারতে অটোরিকশা বেশ জনপ্রিয়। ভাড়া হিসাব করলে বাসের তুলনায় এটি ব্যয়বহুল, কিন্তু ট্যাক্সির তুলনায় সস্তা। যে কারণে ভারতের মধ্যবিত্তের কাছে অটোই সেরা পছন্দ। কয়েক বছর আগে ভারতে নিযুক্ত মেক্সিকোর রাষ্ট্রদূতও গাড়ির বদলে অটোতে চড়ে দিল্লিতে চলাফেরা করে সংবাদমাধ্যমের নজর কেড়েছিলেন।