উন্নয়ন কাজগুলো দ্রুত বাস্তবায়ন করব : সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে আব্দুল ওদুদ

24

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩, (সদর) আসনে উপনির্বাচনে দলীয় মনোনীত নৌকার প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন। সোমবার বিকেলে অলটোন মোড়ে তাঁর রাজনৈতিক কার্যালয়ে তিনি মতবিনিময় করেন।
আব্দুল ওদুদ বলেন-“২০১৮ সালের নির্বাচনে একটি কুচক্রিমহলের ষড়যন্ত্রে আমি পরাজিত হই”। ফলে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ থাকলেও এই আসনে বিএনপি নেতা এমপি থাকার কারণে আমার অসমাপ্ত কাজগুলো স্থবির হয়ে পড়ে। তিনি বলেন, কাজ পাওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে চায়তে হয়। সেই চাওয়াটা হয় নি বলে কাজগুলো পিছিয়ে গেছে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারির উপনির্বাচনে আপনারা অর্থাৎ জনসাধারণ যদি আমাকে নির্বাচিত করেন তাহলে আমি আমার অসমাপ্ত কাজগুলো দ্রুত বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করব।
আব্দুল ওদুদ বলেন- ২০০৮ সালে নির্বাচিত হবার পর থেকে ১০ বছরে শেখ হাসিনা সেতু, রেললাইন সংস্কার, আধুনিক মানের রেলস্টেশন নির্মাণ, আমনুরায় বাইপাস রেললাইন স্থাপন করেছি। যুব উন্নয়ন ভবন করেছি, নদী ভাঙন প্রতিরোধ করেছি, আন্তঃনগর ট্রেন চালু করেছিলাম, ১০০ শয্যার হাসপাতালকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত করেছিলাম। এরকম আরো অনেক বড়বড় উন্নয়ন আমি করেছিলাম। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ নজর ছিল বলেই এসব সম্ভব হয়েছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্য সদর উপজেলাবাসীর। গত ৪ বছরে কিছই হয় নি। আমার রেখে যাওয়া কাজগুলোর মধ্যে সোনামসজিদ পর্যন্ত রেললাইন সম্প্রসারণ, চাঁপাইনবাবগঞ্জে একটি অর্থনৈতিক জোন, পর্যটন কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প অন্যতম। এ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নসহ অন্যান্য উন্নয়ন কাজগুলো আমি করব।
দলীয় কোন্দল সম্পর্কে সাংবাদিকদের করা এক প্রশ্নের জবাবে আব্দুল ওদুদ বলেন, আমি মনে করি না আওয়ামী লীগে কোনো ধরণের কোন্দল আছে। হয়ত মতপার্থক্য থাকতে পারে। তাই বলে কোন্দল আছে সেটা ঠিক নয়। অপর এক প্রশ্নের জবাবে নৌকার প্রার্থী বলেন, আমি চাঁপাইনবাবগঞ্জে ফিরেই জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন ও সহসভাপতি ডা. গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে দেখা করে কথা বলেছি। মেয়র মোখলেসুর রহমানের সঙ্গেও মুঠোফোনে কথা হয়েছে। তিনি রাজশাহী যাবার কারণে দেখা হয় নি। তবে তিনি নিজেই যোগাযোগ করবেন বলে জানিয়েছেন। আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ করলে আওয়ামী লীগের পতাকা তলে সবাইকে থাকতে হবে। যদি কেউ বিরোধীতা করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে আমি আশাবাদী সবাই নৌকার বিজয়ের জন্য কাজ করবেন।
তিনি বলেন-বিএনপি কোনোদিনই দেশের উন্নয়নে বিশ্বাস করে না বলেই বিএনপির এমপি উন্নয়ন কাজগুলো করেননি। তিনি বলেন, জনগণই ভোটের মালিক। জনগণই আমাকে বিপুলভোটে নির্বাচিত করে উন্নয়নের সযোগ করে দিবেন।
দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের ভূমিকার কথা তুলে ওদুদ বলেন, আপনারা সঠিক তথ্য উপস্থাপন করেছিলেন বলেই আমি মনোনয়ন পেয়েছি। আগামী নির্বাচনে সহযোগিতা করে উন্নয়ন কাজগুলো বাস্তবায়নের সুযোগ করে দিবেন।
মতবিনিময় সভায় জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জামাল আব্দুল নাসের পলেন, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হাই, সাংগঠনিক সম্পাদক তাজিবুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এমরান ফারুক মাসুম, হাফিজুর রহমান, গোলাম শাহনেয়াজ অপু, শহীদুল হুদা অলক, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুল জলিল ও সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ রোকনুজ্জামান রোকন, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি ইয়াসমিন সুলতানা রুমা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ফাইজার রহমান কনকসহ অন্যরা।