উত্তর প্রদেশে এবারও জিতবে বিজেপি, বলছে জরিপ

9

ভারতের উত্তর প্রদেশে আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে পূর্ণ শক্তি নিয়ে মাঠে নেমেছে রাজনৈতিক দলগুলো। ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারকে হটাতে সমাজবাদী পার্টির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব ও বহুজন সমাজবাদী পার্টির মায়াবতী প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে, সম্প্রতি টেলিভিশন নাউ ও পোলস্টাটের একটি জনমত জরিপে বলা হচ্ছে, উত্তর প্রদেশে ফের সরকার গঠন করতে যাচ্ছে নরেন্দ্র মোদির দল বিজেপি। আগের নির্বাচনে ৪০৩টি আসনের মধ্যে ৩১২ আসন পেয়ে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গঠন করেছিল বিজেপি। জরিপের তথ্যমতে, এবারও নরেন্দ্র মোদির বিজেপির প্রার্থীকেই বেছে নিতে যাচ্ছেন রাজ্যের ভোটাররা। সেই পথ ধরেই হয়তো দ্বিতীয়বারের মতো যোগী আদিত্যনাথ হতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। জনমত জরিপে বলা হয়, আগামী বছরের উত্তর প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনের ২৩৯ থেকে ২৪৫টি আসনে এগিয়ে আছে বিজেপি। ২০১৭ সালে দীর্ঘ ১৪ বছর পর রাজ্যটিতে ক্ষমতায় আসার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উন্নয়ন এবং মুখ হিসেবে যোগী আদিত্যনাথ ছিল বাজির ঘোড়া। পাঁচ বছর পর একই পথ ধরে এগোতে চায় গেরুয়া শিবির।

জনমত জরিপে আরও বলা হয়েছে, সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের দল সমাজবাদী পার্টি ১১৯ থেকে ১২৫ আসন পেয়ে প্রধান বিরোধী দল হতে পারে। সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতীর বহুজন সমাজবাদী পার্টি (বিএসপি) পেতে পারে ২৮ থেকে ৩২ আসন এবং রাহুল-প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর দল কংগ্রেস পেতে পারে ৫ থেকে ৮টি আসন। অন্যদিকে জরিপে দাবি করা হচ্ছে, রাজ্যের ৫০ শতাংশের বেশি ভোটাররা মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে যোগী আদিত্যনাথকেই পুনরায় চান। এদিকে গত বুধবার ‘বিজয় রথযাত্রা’র সূচনা করে অখিলেশ যাদব বিজেপির যোগী সরকারের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, গত সাড়ে চার বছরে রাজ্য সরকার কোনো কাজ করেনি। প্রতিশ্রুতি পূরণ করেনি। বিজেপি একটিও কাজ করেনি। তারা কেবল ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করছে। অখিলেশ যাদব বলেন, বিজেপি সরকার জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। এটা নাম পরিবর্তনের সরকার। মানুষ এখন এই সরকারকে পরিবর্তন করতে যাচ্ছে। এই উপলক্ষে সাবেক মন্ত্রী ওমপ্রকাশ রাজভর স্লোগান দেন ‘যতদিন পর্যন্ত বিজেপি বিদায় না হয়, ততদিন ঢিলেমি নয়।’ ২০২২ সালের বিধানসভা নির্বাচনে কী হবে, কে সরকার গঠন করতে পারে? মূলত এই বিষয়ের উপর ভিত্তি করে ৯ হাজার জনমতের সমীক্ষা করেছে টাইমস নাউ ও পোলস্টাট। জরিপের তথ্য অনুসারে, পশ্চিম উত্তর প্রদেশ অঞ্চলে একমাত্র বিজেপিকে বিরোধী দলদের কঠোর বিরোধিতার মুখোমুখি পড়তে হতে পারে কারণ রাজ্যের সবচেয়ে বেশি আসন পূর্বাঞ্চলে। ৯২টি আসনের মধ্যে বিজেপি এগিয়ে ৪৭ থেকে ৫০ আসনে।