উত্তপ্ত সময়ে সরকারি পদ ছাড়লেন মিমি

4

জন্মদিনের উৎসবের মধ্যেই কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী দিলেন আরেকটি খবর। তিনি সরকারি পদকে বিদায় জানালেন। লোকসভা ভোটের ঠিক আগে যাদবপুরের ‘জনপ্রতিনিধি’ রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারপার্সনের পদ ছাড়লেন তিনি। ভারতের তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য ও টালিউডের অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী সরকারি পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন। টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা দেবের পথেই হাঁটলেন ভারতের তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য ও টালিউডের অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। জানা গেছে, নলমুড়ি গ্রামীণ হাসপাতাল ও জিরানগাছা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির পদ ছাড়লেন মিমি।

পদ ছাড়ার কারণ হিসেবে তিনি লিখেছেন- ২০১৯ থেকে ২৪ পর্যন্ত আমার সংসদ পদের মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। আপনাদের যে সমর্থন আমি পেয়েছি, তার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি চেয়ারপার্সন হিসেবে চিকিৎসক, নার্স এবং সর্বোপরি রোগীদের কল্যাণার্থে কাজ করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। সন্দেশখালিতে যখন উত্তপ্ত রাজ্য, তার মাঝেই বড় সিদ্ধান্ত নায়িকার। নলমুড়ি আর জিরানগাছা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারপার্সনে ছিলেন সাংসদ-নায়িকা মিমি।

পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন তিনি। ২০১৯ সালে তৃণমূলের হয়ে যাদবপুর থেকে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছিলেন মিমি। প্রায় ২ লক্ষ ২২ হাজার ৪৯৯ ভোটে জিতেছিলেন নায়িকা। কিন্তু মিমি সাংসদ হিসেবে পাঁচ বছরে কতটা সফল সেই নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। প্রসঙ্গত, মিমিকে সর্বশেষ দেখা গেছে শিবপ্রসাদ-নন্দিতার ‘রক্তবীজ’ ছবিতে।