ইরানের পরমাণু আলোচনা শুরু ২৯ নভেম্বর

4

অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় চলতি মাসের শেষের দিকে বিশ্ব পরাশক্তি দেশগুলোর সঙ্গে ইরানের পরমাণু কার্যক্রম নিয়ে ফের আলোচনা শুরু হতে যাচ্ছে। তেহরান বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। গত বুধবার এক টুইট বার্তায় ইরানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলী বাকেরি কানি একথা জানান। তিনি পরমাণু আলোচনায় ইরানের প্রধান আলোচক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আলী বাকেরি জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়নের আলোচক এনরিক মোরার সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে। আমরা আলোচনার জন্য ২৯ নভেম্বর তারিখ নির্ধারন করেছি। ভিয়েনায় শুরু হতে যাওয়া আলোচনায় আমরা অমানবিক ও বেআইনী নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য কথা বলবো।

২০১৫ সালে পাঁচ বিশ্ব শক্তির (যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, চীন ও জার্মানি) সঙ্গে নিজেদের পরমাণু সমঝোতা নিয়ে আলোচনা করে ইরান। পরে চুক্তি সইয়ে মধ্যস্থতার ভূমিকা পালন করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। ওই সমঝোতার মাধ্যমে ইরানের ওপর থেকে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ ও মার্কিন প্রশাসনের দেওয়া নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়। কিন্তু ২০১৮ সালে আন্তর্জাতিক আইনকে অমান্য করে যুক্তরাষ্ট্র ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয় এবং তেহেরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করে। যুক্তরাষ্ট্রের ওই অবৈধ পদক্ষেপের বিপরীতে ইরান পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যায়নি ইরান। তবে দেশটি সমঝোতার ২৬ নম্বর ধারা অনুযায়ী নিজের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন কমিয়ে দেয়। গত এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় ছয় দফা আলোচনা করে ইরান। তবে সেসব আলোচনা থেকে কোনো ফল বেরিয়ে আসেনি।