‘ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র মহড়া ইসরায়েলের প্রতি হুঁশিয়ারি’

6

এ সপ্তাহে সামরিক মহড়ায় নিক্ষেপ করা ক্ষেপণাস্ত্রগুলো ইসরায়েলের প্রতি হুঁশিয়ারি বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের শীর্ষ সেনা কম্যান্ডার। ডয়চেভেলে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। জানা গেছে, স্থানীয় সময় গত শুক্রবার মহড়ার চতুর্থ ও শেষ দিনে একই সঙ্গে ১৬টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে ইরান। ওই ঘটনার পর ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর প্রধান জেনারেল হোসেইন সালামি বলেছেন, নিক্ষেপ করা ক্ষেপণাস্ত্রগুলো ইসরায়েলের প্রতি হুঁশিয়ারি। চারদিনের মহড়ায় দীর্ঘ, মধ্য ও স্বল্প পাল্লার ব্যালাস্টিক ও ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে ইরান। ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর দাবি, তাদের নিক্ষেপ করা ক্ষেপণাস্ত্রগুলো নিখুঁতভাবে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে।

জানা গেছে, গত শুক্রবার ইরানের অ্যারোস্পেস ফোর্সের ১০টি কমব্যাট ড্রোন একই সঙ্গে বিভিন্ন অভিযানে অংশ নিয়েছে। সেগুলোও লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনে ধ্বংস করে দিয়েছে। ওই মহড়ার মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্বাস নিলফোরুশান জানান, এই মহড়া ইসরায়েলের জন্য সরাসরি সতর্ক বার্তা। তবে ইরানের প্রতিবেশী এবং বন্ধুপ্রতিম দেশগুলোর জন্য এটি শান্তির বার্তা দিয়েছে বলে মনে করেন তিনি। হোসেইন সালামি বলেন, ইসরায়েলকে ভুল সম্পর্কে সচেতন হওয়া দরকার। তারা যদি ভুল পদক্ষেপ নেয়, আমরা তাদের হাত কেটে দেব। প্রকৃত অভিযান ও সামরিক মহড়ায় দূরত্ব শুধু ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণে সামান্য কোণ পরিবর্তন করা। আর কিছু নয়। তিনি আরো দাবি করেন, দুই হাজার কিলোমিটার অতিক্রম করতে পারার মতো ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র তাদের কাছে রয়েছে। যা ইসরায়েল ও মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন ঘাঁটিতে আঘাত হানতে সক্ষম। সূত্র: ডয়চেভেলে।