ইরানের অর্থ বাজেয়াপ্তের ঘটনায় মধ্যস্থতা করতে রাজী হলেন বান কি মুন

105

03-moon

আমেরিকায় ইরানের ২০০ কোটি ডলার বাজেয়াপ্ত করার ঘটনা নিয়ে বিরোধের বিষয়ে মধ্যস্থতা করতে সম্মত হয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন। উভয়পক্ষ এ নিয়ে মধ্যস্থতা করার অনুরোধ জানাতে হবে বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফের লেখা চিঠির জবাবে এ কথা জানিয়েছেন বান কি মুন। এ চিঠি প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে জাতিসংঘ মুখপাত্র স্টেফেন ডুজারিক বলেন, উভয়পক্ষ সম্মত হলে জাতিসংঘ মহাসচিবকে যে কোনো সংকট নিষ্পত্তির জন্য সব সময়ই পাওয়া যাবে। জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের কাছে লেখা চিঠিতে জারিফ বলেছেন, সম্প্রতি মার্কিন আদালতের রুলিংয়ের মাধ্যমে বাজেয়াপ্ত করা তেহরানের ২০০ কোটি ডলার ফেরৎ আনার জন্য আইনি সব ব্যবস্থা নেবে ইসলামি প্রজাতন্ত্র। এ ছাড়া চিঠিতে আরো বলা হয়েছে, মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের রুলিংয়ের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা নেয়ার অধিকার রয়েছে ইরানের। মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের রুলিংয়ের মাধ্যমে বাজেয়াপ্ত করা অর্থের মালিক সেন্ট্রাল ব্যাংক অব ইরান বা সিবিআই। মার্কিন নিষেধাজ্ঞার আওতায় এ অর্থ জব্দ করা হয়েছিল। মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের রুলিংয়ে বলা হয়েছে, ১৯৮৩ সালে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বোমা হামলায় নিহত মার্কিন নাগরিকদের পরিবারকে আমেরিকায় আটকে থাকা ২০০ কোটি ডলার দিতে হবে। ওই হামলার জন্য আমেরিকা ইরানকে দায়ী করলেও তেহরান সবসময় এমন অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে।