ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব মুলতবি ঘোষণা

5

পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদের বহুল প্রত্যাশিত অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব উপস্থাপন না করেই অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির বিরোধীদের দ্বারা দাখিল করা এই প্রস্তাবটি আগামী সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করেছে স্পিকার আসাদ কায়সার। পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডন জানায়, শুক্রবার ক্ষমতাসীন পাকিস্তান তেহরিক ইন ইনসাফের (পিটিআই) শাহ মাহমুদ কোরেশি, শিরিন মাজারি, আসাদ উমর এবং আলি মুহাম্মদ খানের পাশাপাশি গ্র্যান্ড ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্সের ডক্টর ফেহমিদা মির্জা এই অধিবেশনে যোগদান করেন।

বিরোধী দল থেকে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে বিরোধী দলের নেতা শাহবাজ শরীফ, পিপিপি চেয়ারম্যান বিলালওয়াল ভুট্টো-জারদারি এবং পিপিপি-এর সহ-সভাপতি আসিফ আলী জারদারিও উপস্থিত ছিলেন। সংসদের স্পিকার আসাদ কায়সার ঘোষণা করেন যে সংসদীয় অধিবেশনের আলোকেই প্রস্তাবটি স্থগিত করা হয়েছে। তিনি বলেন সংসদের একজন সদস্যের মৃত্যুর পরে এটি প্রথম বৈঠক এবং সংসদীয় নীতি অনুযায়ী প্রথম বৈঠকে এই প্রয়াতদের আত্মার জন্য প্রার্থনা এবং সহকর্মী আইনপ্রণেতাদের শ্রদ্ধা জানাতে হয় বলেই আজ অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়েছে।

কায়সার আরও বলেন, ঐতিহ্য অনুসারে, নিম্নকক্ষের একজন সদস্য যখন প্রস্তাব পাস করেন তখন সেই এজেন্ডা পরের দিন পর্যন্ত স্থগিত করা হয়। এমন ঘটনা নতুন নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন অতীতে মোট ২৪ বার এমন ঘটনা ঘটেছে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবের জন্য আজ পার্লামেন্টে এ অধিবেশন আহ্বান করেছিলেন স্পিকার আসাদ কায়সার। দেশটির জাতীয় পরিষদের নিয়ম অনুযায়ী অধিবেশন শুরু হওয়ার তিন দিন পর থেকে সাত দিনের মধ্যে ভোটের আয়োজন করতে হবে। চলতি মাসের শুরুতে বিরোধী দলগুলো ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোটের প্রস্তাব উত্থাপন করে। তাদের দাবি করেন, সাবেক এই ক্রিকেটার পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছেন। তবে ইমরান খানও জানায়, যা কিছুই ঘটে যাক না কেন তিনি ক্ষমতা ছাড়বেন না।