‘ইত্যাদি’ এবার ফেনীতে

10

শিক্ষা, সংস্কৃতি, ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস সমৃদ্ধ ফেনীতে এবারের ‘ইত্যাদি’র দৃশ্যধারণ হয়েছে। মঞ্চ নির্মাণ করা হয়েছে বাংলাদেশের প্রাচীনতম বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে অন্যতম ফেনী সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে। ফেনী অঞ্চল সমৃদ্ধ হওয়ার পেছনে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এই প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে বিরাট অবদান। হানিফ সংকেত জানান, এবারের পর্বটি ধারণ করা হয় ১৭ ডিসেম্বর। এদিন পুরো স্কুল মাঠই ছিলও দর্শক-পূর্ণ। বর্ণিল আলো এবং বিদ্যালয়ের সাথে সঙ্গতি রেখে নির্মিত দৃষ্টি নন্দন মঞ্চে শুটিং চলে সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত। অনুষ্ঠান কর্তা জানান, এবারের অনুষ্ঠানে আধুনিক ও ফোকের ফিউশনে একটি দ্বৈত সংগীত গেয়েছেন পান্থ কানাই ও ডলি সায়ন্তনই। রয়েছে ফেনী জেলাকে নিয়ে একটি পরিচিতিমূলক গানের সঙ্গে স্থানীয় প্রায় শতাধিক নৃত্যশিল্পীর নাচ। এবারের পর্বেও রয়েছে কয়েকটি হৃদয় ছেয়া প্রতিবেদন। রয়েছে ফেনীর ইতিহাস, ঐতিহ্য, মুক্তিযুদ্ধ এবং কীর্তিমান ব্যক্তিদের ওপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। রয়েছে ফেনীর সীমান্তবর্তী মানুষের সুখ-দুঃখ, জীবন-যাপনের ওপর একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন। বিত্তহীন গনি মিয়ার উপর রয়েছে একটি মানবিক প্রতিবেদন।

ফেনীর প্রচার বিমুখ সমাজকর্মী মঞ্জিলা আক্তার মিমির ওপর একটি উদ্বুদ্ধকরণ প্রতিবেদন। যিনি অসহায় মানুষকে সহায়তা দেয়ার জন্য প্রতিষ্ঠা করেছেন একটি মানবিক ও সামাজিক সংগঠন ‘সহায়’। দর্শক পর্বের নিয়ম অনুযায়ী ধনস্থান ফেনীকে ঘিরে প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে হাজার হাজার দর্শকের মাঝখান থেকে ৪ জন দর্শক নির্বাচন করা হয়। ২য় পর্বে নির্বাচিত দর্শকরা আঞ্চলিক ভাষায় একটি নাট্যাংশে অভিনয় করেন। যা ছিল বেশ উপভোগ্য। দর্শকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন ফেনীর কন্যা অভিনেত্রী শমী কায়সার। এই পর্বে হানিফ সংকেতের সঙ্গে রয়েছে তাঁর একটি ভিন্নরকম সাক্ষাৎকার।

ফেনীর মঞ্চে ছিলো যথারীতি সমসাময়িক বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে নানি-নাতির মাতামাতি। এছাড়াও ফেনী অঞ্চলের একটি অন্যতম প্রধান সমস্যা নিয়ে নাটিকাতে অভিনয় করেছেন স্থানীয় কয়েকজন অভিনেতা-অভিনেত্রী। নিয়মিত পর্বসহ এবারও রয়েছে বিভিন্ন সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে বেশ কিছু সরস অথচ তীক্ষ্ণ নাট্যাংশ। ‘ইত্যাদি’র ফেনী পর্বটি একযোগে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে প্রচার হবে ৩০ ডিসেম্বর রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর। যথারীতি রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন।