ইতিহাস কখনো পরিবর্তন হবে না: রাফি

5

মুক্তি পেতে যাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র দামাল। এই সিনেমাটির অধিকাংশ শুটিং হয়েছে রেলওয়ে শহর পার্বতীপুর ও সৈয়দপুরে। ক্যামেরায় উঠে এসেছে মুক্তিযুদ্ধে সুক্ষ্ম স্পর্শ। কেননা রেলের এই দুই শহরে এখনও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি তরতাজা, এখনও কথা বলে দেয়াল। রায়হান রাফি পরিচালিত সিনেমার ট্রেলার ইতোমধ্যে মুক্তি পেয়েছে একই সঙ্গে আলোচনার কেন্দ্রে চলে এসেছে। কিন্তু একটি শ্রেণীর দাবি ট্রেলারে ব্যবহৃত নারায়ে তাকবির স্লোগানটি আসলে সঠিক নয়, একাত্তরে রাজাকাররা নাকি নারায়ে তাকবির স্লোগান ব্যবহার করেননি। পরে একাত্তরে রাজাকারদের প্রচার করা লিফ্লেট বের করে দেখা যায় সেখানে রাজাকার আলবদর আল শামস সাধারণ জনগনকে আকৃষ্ট করার জন্য যে লিফলেট বানিয়েছিল। সেখানে নারায়ে তাকবির লেখা রয়েছে। পিনাকি ভট্টাচার্য নামের একজন ব্লগার পরে ফেসবুকে জানান, রায়হান রাফির সঙ্গে নাকি তার কথা হয়েছে। সংলাপের ওই অংশটা তিনি মুছে দেবেন। এরপরে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের নেটনাগরিকেরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন।

শুক্রবার আইনজীবী ও ব্লগার নিঝুম মজুমদার রীতিমতো ঘোষণা দেনহ, যদি ওই সংলাপ মুছে দেওয়া হয় তাহলে দামাল সিনেমা বয়কটের ডাক দেবেন তিনি। তবে গতকাল শুক্রবার দুপুরে নির্মাতা রায়হান রাফি বললেন, ইতিহাস কখনো পরিবর্তন হবে না। অনেকেই নানা ভাবে ধর্মীয় বিষয়টিকে উস্কে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। আমাকে নানাভাবেই গালিগালাজ করছেন। কিন্তু আমি মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে আপোশ করবো না। আমার সিনেমায় কোনো ইতিহাস পরিবর্তন হবে না। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত বড় আয়োজনের সিনেমা ‘দামাল’-এর ট্রেলার প্রকাশ পেয়েছে মঙ্গলবার। ২ মিনিটের ট্রেলারটি দেখে নেটিজনরা বলছেন, ‘দুর্দান্ত’ ১৯৭১ সালের স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের অনুপ্রেরণার ঐতিহাসিক একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিশু সাহিত্যিক ফরিদুর রেজার সাগরের মূল গল্পে ‘দামাল’ বানিয়েছেন সময়ের সবচেয়ে আলোচিত্র চলচ্চিত্র নির্মাতা রায়হান রাফী।

‘পরাণ’-খ্যাত এই নির্মাতা জানিয়েছেন, ২৮ অক্টোবর মুক্তি পাচ্ছে ‘দামাল’। তারকায় ভরপুর ‘দামাল’র যৌথ চিত্রনাট্য করেছেন লেখক নাজিম উদ দৌলা এবং পরিচালক রায়হান রাফী। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন বিদ্যা সিনহা মিম, সিয়াম আহমেদ, শরিফুল রাজ, সাঈদ বাবু, রাশেদ মামুন অপু, সুমিত, শাহনাজ সুমী, লাক্স তারকা অথৈ, সৈয়দ নাজমুস সাকিব, পূজা, বৃষ্টি প্রমুখ। গত ৮ আগস্ট চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড থেকে বিনা কর্তনে মুক্তির অনুমতি পায় ‘দামাল’। সিনেমা দেখে সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা মুগ্ধ হন।