ইতিহাসের ভয়াবহ বন্যায় সাউথ আফ্রিকায় নিহত ৪৪৩

5

ভারী বর্ষণের পর বন্যায় সাউথ আফ্রিকায় এখন পর্যন্ত ৪৪৩ জন নিহত হয়েছে। আরও ৬৩ জন নিখোঁজ রয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ৪০ হাজারের বেশি মানুষ। কোয়াজুলু-নাটাল (কেজেডএন) প্রদেশে বন্যার কারণে হাজার হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। মোবাইল নেটওয়ার্ক ও বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। বন্ধ রয়েছে জরুরি সেবাও। দেশটিতে শুধু অবকাঠামো খাতে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলার। কেজেডএনের প্রাদেশিক প্রধান সিহলে জিকালালা জানান, মৃতের সংখ্যা সর্বশেষ বেড়ে ৪৪৩ হয়েছে। এখনো আরও অন্তত ৬৩ জন নিখোঁজ আছে। ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার বাসিন্দারা বলছেন, আরো বৃষ্টি হবার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে তারা চিন্তিত। আবার কেউ কেউ নিখোঁজ মানুষের সন্ধানে অপেক্ষায় রয়েছে।

ইথেকউইনি মিউনিসিপ্যালিটির সানশাইন গ্রামের বাসিন্দা সবোঙ্গিল মজোকার ৮ বছর বয়সী ভাতিজা কয়েকদিন ধরে নিখোঁজ। তিনি বলেন, ‘আমরা আশাহত হইনি। যতদিন যাচ্ছে আমাদের ক্রমাগত উদ্বেগ বাড়ছে। ৪৭ বছর বয়সী মজোকা বলেন, আমার বাড়িটি খারাপভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। বৃষ্টি দেখে আমরা আরা আতঙ্কিত হচ্ছি। ঘুমের মধ্যে ঘরের দেয়াল ধসে এলাকায় একটি পরিবারের ৩ জন সদস্য নিহত হয়েছে। ওই পরিবারের ৪ বছর বয়সী বনগেকা সিবিয়া এখনো নিখোঁজ রয়েছে। সাউথ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসার জানিয়েছে, দুর্যোগের কারণে প্রেসিডেন্ট সৌদি সফর পিছিয়ে দিয়েছেন। সঙ্কট মোকাবিলায় প্রেসিডেন্ট মন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। কেজেডএনের জিকালালা একটি টেলিভিশন বলেছেন, এই বন্যাটি প্রদেশের রেকর্ড করা ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা।