আলেপ্পোয় নির্বিচারে মানুষ হত্যা চলছে: জাতিসংঘ

61

6aleppoসিরিয়ার পূর্ব আলেপ্পোয় সরকারপন্থি বাহিনী ঘরে ঘরে ঢুকে নির্বিচারে গুলি করে মানুষ মারছে। নারী ও শিশুদেরকেও তারা রেহাই দিচ্ছে না বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। জাতিসংঘের মানবাধিকার কার্যালয় জানিয়েছে, চারটি এলাকায় অন্তত ৮২ জন নিহত হয়েছে। সেনারা যাকে যেখানে পেয়েছে সেখানেই গুলি করে মেরেছে। এ হত্যাকা-ের বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণও আছে। মানবাধিকার কার্যালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে “আলেপ্পোয় মানবিকতা বলতে আর কিছু অবশিষ্ট নেই।” শহরটির এক চিকিৎসকের বরাত দিয়ে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ বলেছে, পরিবার বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া ১শ’রও বেশি শিশু পূর্ব আলেপ্পোয় প্রচ- হামলার মুখে একটি ভবনে আটকা পড়ে আছে। চারবছর ধরে পূর্ব আলেপ্পো নিয়ন্ত্রণে রাখা বিদ্রোহীরা পরাজয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছেছে। বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা শেষ শহরগুলোতে হাজার হাজার মানুষ আটকা পড়ে আছে বলে খবর পাওয়া গেছে। সরকারপন্থি সেনারা অগ্রসর হতে থাকায় আটকাপড়া এ মানুষগুলো ব্যাপক বোমাবর্ষণের শিকার হচ্ছে। বিবিসি জানায়, জাতিসংঘ এবং আন্তর্জাতিক রেডক্রস কমিটি (আইসিআরসি) উভয়ই একটি নিরাপদ এলাকা দিয়ে বেসামরিক মানুষদেরকে শহর থেকে বের হয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে বোমা হামলা বন্ধে সিরিয়া সরকার ও এর মিত্র রাশিয়াকে আহ্বান জানিয়েছে।
জেনেভায় এক সংবাদ সম্মেলনে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক মুখপাত্র রুপার্ট কলভিল্লে আলেপ্পো থেকে পাওয়া নৃশংসতার খবরের বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছেন। তিনি জানান, ৮২ জনকে গুলি করে হত্যার খবর এসেছে। এর মধ্যে ১১ জন নারী এবং ১৩ জন শিশু। এর আগে রাস্তায় রাস্তায় মৃতদেহ পড়ে থাকার আরও মর্মান্তিক খবর পাওয়া গেছে। অনবরত বোমা বর্ষণের কারণে অধিবাসীরা পালাতে পারছে না। তাছাড়া, দেখামাত্রই গুলিতে প্রাণনাশের আশঙ্কায়ও আছে তারা।