আরেকটি বড় জয় পেল বার্সা

4

শুরুর দিকে কিছুক্ষণ বার্সেলোনার রক্ষণে ভীতি ছড়াল সেভিয়া। এরপর আর সেভাবে খুঁজেই পাওয়া গেল না দলটিকে। গ্রীষ্মের দলবদলে কাতালান দলটিতে আসা নতুন তিন খেলোয়াড় ছড়ালেন আলো। দাপুটে পারফরম্যান্সে মুখে চওড়া হাসি নিয়ে মাঠ ছাড়ল শাভি এরনান্দেসের দল। প্রতিপক্ষের মাঠে শনিবার রাতে লা লিগার ম্যাচটি ৩-০ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা। একটি করে গোল করেন রবের্ত লেভানদোভস্কি, রাফিনিয়া ও এরিক গার্সিয়া। জোড়া অ্যাসিস্ট করেন জুল কুন্দে। স্বাগতিক গোলরক্ষক দুর্দান্ত কিছু সেভ না করলে এবং সফরকারীরা নিশ্চিত কয়েকটি সুযোগ না হারালে ব্যবধান হতে পারত আরও বড়। গোলশূন্য ড্রয়ে আসর শুরু করা বার্সেলোনা পরের তিন ম্যাচে জিতল ৪-১, ৪-০ ও ৩-০ গোলে। চতুর্থ মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায় সেভিয়া। সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার ইসকোর পাস খুঁজে পায় সাবেক বার্সেলোনা মিডফিল্ডার ইভান রাকিতিচকে। গোলরক্ষককে পরাস্তও করেন তিনি। তবে গোললাইন থেকে ক্লিয়ার করেন ডিফেন্ডার রোনালদ আরাহো। ১৯তম মিনিটে দারুণ সেভে জাল অক্ষত রাখেন বার্সেলোনা গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

ইসকোর পাসে ইউসেফ এন-নেসিরির শট ফিরিয়ে দেন তিনি। দুই মিনিট পরই দারুণ এক পাল্টা আক্রমণে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। উসমান দেম্বেলে বক্সে খুঁজে নেন লেভানদোভস্কিকে। আগুয়ান গোলরক্ষকের ওপর দিয়ে পোলিশ তারকার চিপ গোললাইন থেকে ফেরান মিডফিল্ডার ফের্নান্দো। কাছেই থাকা রাফিনিয়া হেডে বার্সেলোনার হয়ে নিজের প্রথম গোল করেন। সদ্য শেষ হওয়া দলবদলে লিডস ইউনাইটেড থেকে কাতালান দলটিতে নাম লেখানো এই ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার তিন মিনিট পর সুযোগ পান আরেকটি। তবে এবার উড়িয়ে মারেন তিনি। ৩৬তম মিনিটে চমৎকার গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লেভানদোভস্কি। এই মৌসুমে সেভিয়া থেকে কাম্প নউয়ে আসা ফরাসি ডিফেন্ডার কুন্দের ডান দিক থেকে বাড়ানো ক্রস বক্সের ভেতর বুক দিয়ে নামিয়ে ডান পায়ের শটে ঠিকানা খুঁজে নেন তিনি। লা লিগায় অভিষেকে সম্ভাবনা জাগিয়েও জালের দেখা পাননি লেভানদোভস্কি। তবে পরের তিন ম্যাচেই পাঁচ গোল করলেন সাবেক বায়ার্ন মিউনিখ স্ট্রাইকার।

গত দুই রাউন্ডে করেছিলেন দুটি করে। বিরতির আগে ব্যবধান বাড়ানোর দুটি সুযোগ নষ্ট হয় সফরকারীদের। পেদ্রির ক্রস ছয় গজ বক্সের মুখে ফাঁকায় পেয়ে হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি কুন্দে। পাল্টা আক্রমণে বক্সে ঢুকে এগিয়ে আসা গোলরক্ষকের ওপর দিয়ে বাইরে শট করেন দেম্বেলে। অথচ পাশেই ফাঁকায় ছিলেন লেভানদোভস্কি। দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে স্কোরলাইন হয় ৩-০। ডান দিক থেকে রাফিনিয়ার ক্রস দূরের পোস্টে পেয়ে হেড পাস দেন কুন্দে। বাকিটা সারেন তরুণ স্প্যানিশ ডিফেন্ডার গার্সিয়া। ৬২তম মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়তে পারত। সের্হিও রবের্তোর ক্রসে বক্সে লেভানদোভস্কির স্লাইড শট হাত বাড়িয়ে ঠেকান সেভিয়ার গোলরক্ষক। ৭৩তম মিনিটে কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে আরও দুটি সুযোগ নষ্ট হয় বার্সেলোনার। ওয়ান-অন-ওয়ানে লেভানদোভস্কির শট ফিরিয়ে দেন গোলরক্ষক।

ফিরতি বলে ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের প্রচেষ্টা ঠেকিয়ে দেন এক ডিফেন্ডার। এর পরপরই লেভানদোভস্কির জায়গায় আনসু ফাতিকে নামান বার্সেলোনা কোচ শাভি। ৮০তম মিনিটে গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন ডি ইয়ং। বক্সের বাইরে থেকে তার শট অল্পের জন্য বাইরে যায়। আগামী বুধবার ভিক্তোরিয়া প্লাজেনের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নতুন আসর শুরু করবে বার্সেলোনা। তার আগে এমন পারফরম্যান্স নিশ্চয়ই আরও উজ্জীবিত করবে তাদের। ৪ ম্যাচে ৩ জয় ও এক ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠেছে বার্সেলোনা। দিনের আরেক ম্যাচে রিয়াল বেতিসকে ২-১ গোলে হারানো রিয়াল মাদ্রিদ ১২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। ৯ পয়েন্ট নিয়ে তিনে বেতিস। গত আসরে অনেকটা সময় পর্যন্ত শিরোপা লড়াইয়ে থাকা সেভিয়া এবার প্রথম চার ম্যাচ থেকে ¯্রফে ১ পয়েন্ট নিয়ে ১৭ নম্বরে আছে।