দৈনিক গৌড় বাংলা

মঙ্গলবার, ২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতল পাকিস্তান

শাহিন শাহ আফ্রিদির বোলিংয়ের পর দুই ব্যাটার মোহাম্মদ রিজওয়ান ও অধিনায়ক বাবর আজমের ব্যাটিং নৈপুন্যে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতেছে পাকিস্তান। গতরাতে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে সফরকারী পাকিস্তান ৬ উইকেটে হারিয়েছে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে। এতে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতলো পাকিস্তান। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আয়ারল্যান্ড ৫ উইকেটে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তান ৭ উইকেটে জিতেছিলো। ডাবলিনে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৫ রানে প্রথম উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড। ওপেনার রস অ্যাডায়ারকে ৭ রানে বোল্ড করেন পাকিস্তানের পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে পাকিস্তানের বোলারদের উপর চড়াও হয়ে ১১তম ওভারে আইরিশদের রান ১শতে নেন এন্ডি বলবির্নি ও ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লরকান টাকার। দলীয় ১শ রানে বলবির্নিকে আউট করে পাকিস্তানকে ব্রেক-থ্রু এনে দেন পেসার আব্বাস আফ্রিদি। ২টি চার ও ৩টি ছক্কায় ২৬ বলে ৩৫ রান করেন বলবির্নি। অন্যপ্রান্তে ২৯ বলে টি-টোয়েন্টিতে অষ্টম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন টাকার। ১৪তম ওভারে স্পিনার ইমাদ ওয়াসিমের বলে সাজঘরে ফিরেন ১৩টি চার ও ১টি ছক্কায় ৪১ বলে ৭৩ রান করা টাকার। টাকার ফেরার পর আয়ারল্যান্ডকে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৭৮ রানের পুঁজি এনে দেন হ্যারি টেক্টর। ২টি চার ও ১টি ছক্কায় ২০ বলে অপরাজিত ৩০ রান করেন টেক্টর। পাকিস্তানের শাহিন শাহ ১৪ রানে ৩টি ও আব্বাস ৪৩ রানে ২ উইকেট নেন। সিরিজ জয়ের জন্য ১৭৯ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে দলীয় ১৬ রানে প্রথম উইকেট হারায় পাকিস্তান। ৩টি চারে ১৪ রান করেন ওপেনার সাইম আইয়ুব। সতীর্থ হারানোর পর বাবরকে নিয়ে আয়ারল্যান্ড বোলারদের বিপক্ষে দ্রুত রান তুলে ৩০ বলে টি-টোয়েন্টিতে ২৮তম হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন রিজওয়ান। তার ঝড়ো অর্ধশতকে ১১তম ওভারে ১শ রান পেয়ে যায় পাকিস্তান। ১৪তম ওভারে ৪টি ছক্কায় ২৫ রান তুলে টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড ৩৯তম হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ন করেন ১৯ রানে ক্যাচ দিয়ে জীবন পাওয়া বাবর। ভারতের বিরাট কোহলিকে টপকে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এখন সর্বোচ্চ হাফ-সেঞ্চুরির মালিক বাবর। ১৫তম ওভারে দলীয় ১৫৫ রানে মার্ক অ্যাডায়ারের শিকার হন ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৩৮ বলে ৫৬ রান করা রিজওয়ান। বাবর-রিজওয়ান জুটিতে ৭৪ বলে ১৩৯ রান যোগ করেন। ১৬তম ওভারে বাবরও থামলে, পাকিস্তানের জয় পেতে সমস্যা হয়নি। ১৭ ওভারে ৪ উইকেটে ১৮১ রান করে ম্যাচ জিতে নেয় উপমহাদেশের দলটি। ৬টি চার ও ৫টি ছক্কায় ৪২ বলে ৭৫ রান করেন বাবর। ১টি চার ও ২টি ছক্কায় ৬ বলে ১৮ রানে অপরাজিত থাকেন আজম খান। ম্যাচ সেরা হয়েছেন শাহিন শাহ। আগামী ২২ মে থেকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করবে পাকিস্তান।

About The Author

This will close in 0 seconds